বিদায়ী বছরে সূচক ও লেনেদেনের পরিমান পতন

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের লেনদেনের গতি কোভিড ১৯ মহামারি ও ইউক্রেন-রাশিয়া সংঘাতের কারণে অনেকটা হ্রাস পেয়েছে৷ বিদায়ী বছরে ডিএসইতে মূল্য সূচকের সাথে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তথ্য মতে, ২০২২ সালে ডিএসইতে ২৪৪ কর্মদিবসে লেনদেন হয়েছে ২ লাখ ২৪ হাজার ৪৪৭ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। ২০২১ সালে ডিএসইতে ২৪০ কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছে ৩ লাখ ৫৪ হাজার ৫২ কোটি ৮৬ লাখ টাকার।

বছরের ব্যবধানে গড় লেনদেন হয়েছে ৯৬০ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। ২০২১ সালে গড় লেনদেন ছিল ১ হাজার ৪৭৫ কোটি ২২ লাখ টাকা। অর্থাৎ চলতি বছরে ডিএসইর গড় লেনদেন কমেছে ৫১৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকা বা ৩৪.৮৬ শতাংশ। অন্যদিকে কমেছে সূচকের পরিমানও।

  • ডিএসই ব্রড ইনডেক্স (ডিএসইএক্স) হ্রাস ৮.১৪%ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান মূল্য সূচক ডিএসই ব্রড ইনডেক্স (ডিএসইএক্স) আগের বছরের চেয়ে ৫৪৯.৮৫ পয়েন্ট বা ৮.১৪ শতাংশ হ্রাস পেয়ে ৬২০৬.৮১ পয়েন্টে দাঁড়ায়৷ ২০২২ সালে ডিএসইএক্স মূল্য সূচক সর্বোচ্চ ৭১০৫.৬৯ পয়েন্টে উন্নীত হয় এবং সর্বনিম্ন ছিল ৫৯৮০.৫১ পয়েন্ট৷
  • ডিএসই ৩০ সূচক (ডিএস৩০) হ্রাস ১৩.৩২%

ডিএসই ৩০ সূচক (ডিএস৩০) ৩৩৭.২৮ পয়েন্ট বা ১৩.৩২ শতাংশ হ্রাস পেয়ে ২১৯৫.৩০ পয়েন্টে দাঁড়ায়৷ ২০২২ সালে ডিএস৩০ মূল্য সূচক সর্বোচ্চ ২৬৩৫.৩৮ পয়েন্টে উন্নীত হয় এবং সর্বনিম্ন ছিল ২১৪৫.২৫ পয়েন্ট৷

  • ডিএসইএক্স শরীয়াহ্ সূচক (ডিএসইএস)হ্রাস ৫.০৫%

একই বছর ডিএসইএক্স শরীয়াহ্ সূচক (ডিএসইএস) ৭২.২৯ পয়েন্ট বা ৫.০৫ শতাংশ হ্রাস পেয়ে ১৩৫৮.৮৪ পয়েন্টে দাঁড়ায়৷ ২০২২ সালে ডিএসইএস মূল্য সূচক সর্বোচ্চ ১৫২২.৯৮ পয়েন্টে উন্নীত হয় এবং সর্বনিম্ন ছিল ১৩০৮.২০ পয়েন্ট৷