দুই বাংলাদেশি পর্বতারোহী, সালেহীন আরশাদী এবং ইমরান খান অজিল হিমালয়ের পশ্চিম অংশে মাত্র ১০ দিনের মধ্যে চারটি শৃঙ্গ আরোহণ করে জাতীয় রেকর্ড গড়েছেন।

‘গোজায়ান অভিযান লাদাখ’ শিরোনামের অধীনে পর্বতারোহী জুটি চারটি শৃঙ্গে আরোহণ করে, যার মধ্যে রয়েছে কাং ইয়াতসে ২ (৬২৫৪ মিটার), জো জঙ্গো ইস্ট (৬২১৪ মিটার), রিগিওনি মাল্লাই রি ১ (৬১২০ মিটার) এবং কঙ্গা রি (৫৭৫৫ মিটার)। এই অভিযানটি ভারতের উত্তরাঞ্চলের লাদাখে হয়েছিল, যা লিটল তিব্বত নামেও পরিচিত। দলটি ৪ সেপ্টেম্বর ঢাকা ত্যাগ করে এবং পরের দিন লাদাখের রাজধানী লেহ পৌঁছায়।

প্রয়োজনীয় পারমিট এবং সাজ-সরঞ্জাম সংগ্রহের পর দলটি ৮ সেপ্টেম্বর ট্রেক শুরু করে, দুই দিন পর কাং ইয়াতসে-২ বেস ক্যাম্পে পৌঁছায়। ১২ সেপ্টেম্বর মধ্যরাতে তারা আরোহণ শুরু করেন এবং দুপুর ১২টা ৮ মিনিটে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৬২৫৪ মিটার উঁচুতে কাং ইয়াতসে-২ এর শীর্ষে পৌঁছাতে সক্ষম হন।

এরপর দলটি তাদের বেস ক্যাম্প রিগিওনি মাল্লাই রি-তে স্থানান্তরিত করে। ১৫ সেপ্টেম্বর মধ্যরাতে তারা সামিটের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেন। টানা ১২ ঘণ্টা আরোহণের পর তারা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৬১২০ মিটার উঁচু চূড়ায় আরোহণ করেন। ১৯ সেপ্টেম্বর দলটি ৫৭৫৫ মিটার উচ্চতার কঙ্গা রিতে আরোহণ করেন এবং ২০ সেপ্টেম্বর বিকাল ৫টা ৪৩ মিনিটে এই জুটি ৬২১৪ মিটার উঁচু জো জঙ্গো ইস্ট চূড়ায় আরোহণ করে অভিযানটি সফলতার সঙ্গে শেষ করে। একক অভিযানে একাধিক উচ্চ শৃঙ্গ আরোহণের এমন নজির বাংলাদেশি পর্বতারোহণের জন্য একটি নতুন মাইলফলক।

গোজায়ান এক্সপেডিশন লাদাখ

পর্বতারোহীদের কমিউনিটি অদ্রি’র সিইও মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম বলেন, আমাদের বিশ্বাস দুই তরুণ পর্বতারোহীর সাহসীকতা, মানসিক দৃঢ়তা ও সফলতার খবর বাংলাদেশের যুবকদের একটি সক্রিয় জীবনধারার প্রতি অনুপ্রাণিত করবে এবং পর্বতারোহণের মতো রোমাঞ্চকর ক্ষেত্রে পদার্পণে তাদের সহায়তা করবে।

গোজায়ান এক্সপেডিশন লাদাখ’ অভিযানটি আয়োজন করেছে পর্বতভিত্তিক অ্যাডভেঞ্চার কমিউনিটি অদ্রি। অদ্রি তার সূচনালগ্ন থেকেই কর্মশালা, প্রশিক্ষণ, প্রকাশনা এবং ফিল্ম শো আয়োজনের মাধ্যমে তরুণদের ট্রেকিং ও পর্বতারোহণের মতো চ্যালেঞ্জিং কার্যক্রম শুরু করতে অনুপ্রাণিত করে যাচ্ছে। ভ্রমণ প্রযুক্তি সংস্থা গোজায়ান দেশের তরুণ-তরুণীদের নিজেদের সীমানা ছাড়িয়ে সামনে এগিয়ে যেতে অনুপ্রাণিত করতে অভিযানটির পৃষ্ঠপোষকতা করছে।