হাঁসে হাসি সুজন মিয়ার মুখে

হাঁস পালন করে স্বাবলম্বী
হাঁস : ফাইল ছবি

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার শিবপাশা গ্রামের বাসিন্দা সুজন মিয়া এক সময় বেকার ছিলেন। হাঁস পালন করে এখন স্বাবলম্বী। তার ছোট খামার থেকে বছরে তিনি লাখ খানেক টাকা আয় করেন।

জেলার সুজনের মতো বহু তরুণের হাঁস পালন করে সুদিন এসেছে। দূর হচ্ছে বেকারত্ব।

জেলার ভাটি অঞ্চল হিসেবে পরিচিতি বানিয়াচঙ্গ, আজমিরীগঞ্জ, লাখাই, নবীগঞ্জ উপজেলার হাওরাঞ্চলের মানুষের বছরে আট মাস তেমন কাজ থাকে না। তারা শুধু বোরো ধানের উপর নির্ভরশীল। বিকল্প পেশা হিসেবে তারা হাঁস পালনে ঝুঁকেছেন।

আরো পড়ুন- ড্রাগন ফল চাষে সফল কৃষক আলীম

বোরা ধান সংগ্রহের পর হাওরের শামুক খেয়ে হাঁসগুলো বড় হয়। আলাদা করে খাদ্য দেওয়া লাগে না। হাঁসের খামারিরা চৈত্র-বৈশাখ মাসে বাচ্চা সংগ্রহ করেন। ৫০০ থেকে ৪ হাজার হাঁস নিয়ে একটি পাল বা খামার গড়ে ওঠে। এক হাজার হাঁস খামারে থাকলে প্রতিদিন ৯০০ ডিম পাওয়া যায়। একটি হাঁস চার বছর পর্যন্ত ডিম দেয়। একটি ডিম ৮ থেকে ১০ টাকায় বিক্রি হয়।

অন্যদিকে বাহুবল উপজেলার অলুয়া গ্রামের বাসিন্দা আবিদ আলী। এক যুগ ধরে হাঁসের খামার করছেন। খুব অল্প পুঁজি নিয়ে শুরু করেছিলেন। এখন তার খামারে ২ হাজার ৫০০ হাঁস রয়েছে। তিনি বলেন, হাওরের খাল, ডোবা ও অনাবাদি জমিতে প্রাকৃতিক খাবার খেয়ে হাঁসগুলো বড় হয়।

আরো পড়ুন- ১ মণ ভুট্টার দাম ৬০০ টাকা, চাষে আগ্রহ বেড়েছে

তিনি জানান, হাঁস পাঁচ মাস বয়স থেকে ডিম দেওয়া শুরু করে। একটি হাঁস চার বছর পর্যন্ত বাঁচে এবং খাবার দিলে ১২ মাসই ডিম দেয়। তবে তিনি জানান, যেহেতু তার হাঁসগুলো প্রাকৃতিক খাবার খেয়ে বড় হয়, সেজন্য তিনি এক মৌসুম অর্থাৎ চার/পাঁচ মাস ডিম পাড়ার পর সেটি মাংস হিসেবে বিক্রি করে দেন।

তিনি জানান, তার খামার থেকে তিনি বছরে ৭/৮ লাখ টাকা আয় করেন। তবে প্রতিবছর এই পরিমাণ আয় করতে পারেন না। হাঁস পালনে ঝুঁকিও রয়েছে। এ জন্য তিনি উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের পরামর্শ নিয়ে থাকেন।

বাহুবল উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. আমজাদ হোসেন ভূইঞা বলেন, উপজেলাজুড়ে শতাধিক খামারে ৮২ হাজার হাঁস রয়েছে। হাঁস পালন করে উপজেলার তরুণরা স্বাবলম্বী হতে পারছে।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. প্রকাশ রঞ্জন বিশ্বাস বলেন, হাওর-বাঁওড়ের জেলা হবিগঞ্জে হাঁস পালনের জন্য প্রচুর প্রাকৃতিক খাবার পাওয়া যায়। এতে খামারিরা লাভবান হন।

তিনি বলেন, তবে এখন শুধু হাওর নয়, বিভিন্ন উপজেলায় হাঁসের খামার গড়ে উঠছে। জেলায় ২১ হাজার খামারে ১১ লাখ হাঁস পালন করা হচ্ছে। খামারিদের বেশিরভাগ তরুণ। তাদের প্রশিক্ষণসহ বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করা হয়ে থাকে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

আরো পড়ুন- বিদ্যালয়ের ছাদে দৃষ্টিনন্দন বাগান

 

1 মন্তব্য

Leave a Reply