হাঁটুব্যথার কারণ ও প্রতিকার

হাঁটুব্যথার কারণ

শরীরের পুরো ভার বহন করে হাঁটু। পঞ্চাশোর্ধ্ব নারী-পুরুষ সবচেয়ে বেশি এই ব্যথায় ভোগেন। যাদের ওজন স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হাঁটুব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা তাদের অনেক বেশি।

কেন হয় হাঁটুব্যথা ?

আমাদের হাঁটু ভিন্ন হাড়ের সংযোগস্থল। এটি লিগামেন্ট ও মাংসপেশি দ্বারা সুগঠিত। জয়েন্টের  নাড়াচাড়ায় এর ভেতরে গ্রিজের ন্যায় স্থিতিস্থাপক পদার্থ থাকে।

হাঁটুব্যথার কারণ বয়স অথবা অতিরিক্ত ওজন বা অন্য কোনো কারণে যদি হাড়ে পরিবর্তন হয় বা ভেতরের তরল পদার্থের স্থিতিস্থাপকতা কমে যায় তবে হাঁটুতে মাঝারি থেকে তীব্র ব্যথা হতে পারে। অস্টিও আথ্রাইটিস বা হাঁটু ক্ষয় বয়স্ক রোগীদের হাঁটুব্যথার অন্যতম কারণ। একটি সাধারণ এক্স-রের মাধ্যমে এর তীব্রতা সহজেই নির্ণয় করা যায়। এ ছাড়া লিগামেন্ট, মাংসপেশি বা মিনিসকাস ইনজুরির জন্যও হতে পারে হাঁটুব্যথা।

কী করবেন?

হাঁটুব্যথার কারণ  নির্ণয় করা গেলে চিকিৎসা খুব সহজ। হাড় ক্ষয়জনিত হাঁটু ব্যথায় সমন্বিত চিকিৎসা বা ইন্টিগ্রেটেট ট্রিটমেন্ট যেমন: ইনফিলট্রেশন, ম্যানিপুলেশন ও ইলেকট্রোথেরাপি খুবই কার্যকর। এর সঙ্গে বিশেষ ধরনের ব্যায়াম করলে হাঁটু সবল হয়।

ইনফিলট্রেশন দ্বারা হাঁটুর জেলির স্থিতিস্থাপকতা বাড়ানো যায়। ফলে হাঁটু অধিক সচল হয় এবং দ্রুত ব্যথা কমে আসে। হাঁটুব্যথায় ম্যানিপুলেশনও খুব ভালো কাজ করে, ডিপ ফ্রিকশন বা সিরিয়্যাক্স টেকনিক নন-আথ্রাইটিক ব্যথা কমাতে খুব কার্যকর।

হাঁটুব্যথায় যে ব্যায়াম করবেন :

বিশেষ কিছু ব্যায়াম করলে বেশ উপকার পাওয়া যায়। দুই হাঁটু সোজা করে পা দুটি টান টান অবস্থায় রাখতে হবে। এভাবে ১০ সেকেন্ড ধরে থাকুন। তারপর পা দুটি স্বাভাবিক অবস্থায় রেখে বিশ্রাম নিতে হবে। ৫-১০ বার ব্যায়ামটি করতে হবে। শুয়ে বা বসে কিংবা অফিসে কাজের ফাঁকেও এই ব্যায়ামটি করতে পারেন।

হাঁটুর নিচে তোয়ালে ভাঁজ করে রেখে পায়ের পাতা টান টান করে শুয়ে থাকুন ১০ সেকেন্ডের জন্য। এরপর একই অবস্থানে থেকে পায়ের পাতা স্বাভাবিক রেখে বিশ্রাম নিন। এই পদ্ধতিতে ৫-১০ বার ব্যায়াম করুন।

চেয়ারের পেছনের উঁচু অংশে দুই হাত রেখে দাঁড়ান। একবার ডান হাঁটু ও পরেরবার বাম হাঁটু ভাঁজ করুন। এভাবে ৫-১০ বার ব্যায়াম করুন।

প্রতিরোধে যা করতে হবে:

নিয়মিত হাটার অভ্যাস তৈরি করতে হবে। এছাড়া শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন। পর্যাপ্ত ভিটামিন, মিনারেলস ও আঁশযুক্ত খাবার খান। নিয়মিত হালকা ব্যায়াম ও সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে হাঁটুব্যথা নিরাময় সম্ভব।

আরো পড়ুন- অতিরিক্ত ওজনে ক্যানসারের ঝুকি

1 মন্তব্য

Leave a Reply