কাঁচা লবণ

আমাদের শরীরে স্বাভাবিক কাজগুলো করতে দৈনিক ৫ গ্রাম বা এক চা চামচের বেশি লবণের দরকার নেই। কাঁচা লবণ খাওয়ার চেয়ে বিভিন্ন খাবারের মধ্যে যে পরিমান লবণ থাকে, তার মাধ্যমে শরীরের জন্যে প্রয়োজনীয় লবণ আমরা পেয়ে থাকি ।প্রয়োজনের থেকে বেশি লবণ শরীরের জন্যে ক্ষতিকর। লবণের প্রধান কাজ পেশী এবং স্নায়ুর কাজে সাহায্য করা ও শরীরের পানি নিয়ন্ত্রণ করা।

অতিরিক্ত পরিমান লবণ খেলে সবচেয়ে বেশি সমস্যা হয় ব্লাড প্রেশারে,সাথে স্ট্রোকেরও ঝুঁকি বাড়ে, হার্টে সমস্যা হয়, হাড় ক্ষয় বেড়ে যায়, পাকস্থলীর ক্যান্সার হবার অপার সম্ভাবনা থাকে, কিডনিতে বিভিন্ন জটিলতা বাড়ে।

দৈনন্দিন জীবনে ভালো থাকার একটি অন্যতম উপায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। দীর্ঘদিন প্রয়োজনের বেশী লবণ খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমে যায়। অল্পতে দুর্বল লাগতে পারে কারণ, অতিরিক্ত লবণ তখন শরীরে শক্তি তৈরিতে বাধা দেয়। শরীর ভালো রাখতে সামান্য লবণেই যথেষ্ট। এমনকি প্রাকৃতিক অনেক খাবারেই কম বেশি লবণ আছে।

ভাতের সাথে কাচা লবণ খাবেন না। যদিও আমরা বেশিরভাগ লবণ খেয়ে থাকি তরকারি ও নাস্তায়। আচারে প্রচুর লবণ থাকে, সস, চানাচুর, মুড়ি, পিজা, ইনস্ট্যান্ট নুডুলস, বার্গার, চিপসে প্রচুর লবণ থাকে। সম্ভব হলে খাবারের টেবিলে আলাদা লবণদানী রাখবেন না।