করোনা মহামারী সংকট কাটিয়ে প্রাণ ফিরেছে দেশের পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে। গৃহবন্দী জীবন থেকে মুক্ত হয়ে মানসিক প্রশান্তির সন্ধানে পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদের নিয়ে পর্যটন কেন্দ্রে যাওয়ার হার বৃদ্ধি পেয়েছে। পর্যটন কেন্দ্রগুলো এবং স্থানসমূহের মধ্যে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের অবস্থান শীর্ষে।

ঈদের দীর্ঘ ছুটিতে দেশ বিদেশ থেকে অসংখ্য মানুষ কক্সবাজারে বেড়াতে এসেছেন। পরিবার পরিজন নিয়ে আনন্দমূখর সময় কাটিয়েছেন দেশের অন্যতম এই পর্যটনকেন্দ্রে। ভ্রমণপ্রেমিক মানুষদের জন্য আরও চমৎকার স্পটে পরিণত হতে যাচ্ছে কক্সবাজার। এ ব্যাপারে এসেছে প্রধানমন্ত্রীর নতুন নির্দেশনাও।

ঈদের ছুটিতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে বেড়াতে আসা একটি পরিবার ছবি: সংগ্রহীত

পর্যটননগরী কক্সবাজারের উন্নয়নের লক্ষ্যে মাস্টার প্ল্যান করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী এজন্য যত্রতত্র স্থাপনা না করার আহবান জানিয়েছেন কক্সবাজারবাসীর প্রতি।

বুধবার (১৮ মে) কক্সবাজারের বীর মুক্তিযোদ্ধা মাঠে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নবনির্মিত বহুতল ভবনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

পর্যটননগরী হিসেবে কক্সবাজারকে চমৎকার আাখ্যা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কক্সবাজারে আমরা অনেকগুলো প্রকল্প হাতে নিয়েছি। একটা মাস্টার প্ল্যান করার নির্দেশ দিয়েছি পুরো কক্সবাজার ঘিরে। আমরা চাই এর উন্নয়নটা যাতে পরিকল্পিতভাবে হয়। প্রধানমন্ত্রী এসময় কক্সবাজার বিমনবন্দরকে আন্তর্জাতিক করার কাজ চলমান রয়েছে জানান।