শেয়ার ছাড়বে ওয়ালটন

পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কোম্পানি ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ফ্রি-ফ্লোট শেয়ারের বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে। কোম্পানিটি এর জন্য সময় চায় দুই বছর। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) আবেদন করেছে ওয়ালটন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, বর্তমানে পুঁজিবাজারে ফ্রি-ফ্লোট হিসেবে দশমিক ৯৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। কমিশন কমপক্ষে ১০ শতাংশ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলো বিএসইসি। এর আলোকে গত ৬ সেপ্টেম্বর আরও ৯ দশমিক ৩ শতাংশ শেয়ার বাজারে ছাড়ার জন্য বিএসইসিতে আবেদন করেছে কোম্পানীটি। ফ্রি-ফ্লোট শেয়ার নিশ্চিত করতে দুই বছরের মধ্যে পাবলিক মার্কেট এবং উপহারের উপায়ের মাধ্যমে এই শেয়ার ছাড়তে আবেদন করে। ওয়ালটনের পরিচালকরা কোম্পানির ২ দশমিক ৭৩ কোটি বা ৯ দশমিক ০৩ শতাংশ শেয়ার অফলোড করবেন।

কোম্পানির আবেদনের প্রেক্ষিতে ইতোমধ্যে কমিশন একটি একটি খসড়া চিঠি তৈরি করেছে। পরবর্তী কমিশন সভায় এটি অনুমোদন দেওয়া হতে পারে বলে জানা গেছে ।

সূত্র মতে, আগামী দুই বছরে কোম্পানির উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছ থেকে ৪ দশমিক ০৩ শতাংশ শেয়ার বাজারে ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হবে। পাশাপাশি পৃষ্ঠপোষক-পরিচালকদের অবশ্যই পরিবারের সদস্যদের উপহারের মাধ্যমে অবশিষ্ট আরও ৫ শতাংশ শেয়ার অফলোড করতে হবে। তবে বিক্রয় ঘোষণা, শেয়ার হস্তান্তর এক সময় হতে হবে। কোম্পানিকে প্রতি মাসে শেয়ার অফলোডিং সম্পর্কে কমিশনকে রিপোর্ট করতে হবে।

এর আগে ২০২১ সালের ১২ সেপ্টেম্বর ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ, ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ এবং বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশকে তাদের ফ্রি-ফ্লোট শেয়ার ১০ শতাংশ করার নির্দেশ দেয় বিএসইসি।

উল্লেখ, ওয়ালটন আইপিও’র মাধ্যমে বাজার থেকে ১০০ কোটি টাকা সংগ্রহ করে। ২০২০ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর দেশের উভয় পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয় প্রকৌশল খাতের এই জায়ান্ট কোম্পানি। বর্তমানে কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ৬০০ কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ৩০২ কোটি ৯২ লাখ টাকা।