দেশ সমাচার ডেস্ক : ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানাধীন বাড়ির সীমানা বিরোধের জের ধরে লাঠি দিয়ে দেবর সাইফুল ইসলাম ওরফে সাইফুলকে (৪০) পিটিয়ে হত্যা করেছে ভাবি।

গেলো দিন রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। ঘটনাটি ঘটেছিল গতকাল বিকালে উপজেলার টাংগাব ইউনিয়নের রৌহা গ্রামে। এতে করে নিহতের স্ত্রী আফরোজা আক্তার বাদী হয়ে পাগলা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।

তথ্য সূত্র মতে, উপজেলার পাগলা থানাধীন রৌহা গ্রামের মৃত সুরুজ আলীর ওরফে সূর্যের বড় ছেলে বুলবুল ও ছোট ছেলে সাইফুল ইসলাম ওরফে সাইফুল বাড়ির উঠানের সীমানায় মাটি ফেলা নিয়ে ঝগড়া হয়। এতে একপর্যায়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এ সময় বুলবুলের স্ত্রী পলি আক্তার লাঠি দিয়ে দেবরকে মাথায় এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে।

এতেই দেবর সাইফুল গুরুতর আহত হন। স্বজনরা আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

নিহতের স্ত্রী আফরোজা আক্তার বলেন, ভিটেবাড়ি সীমানা নিয়ে কয়েকদিন ধরে ভাসুর বুলবুলের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল। ওরা পরিকল্পিতভাবে আমার স্বামীকে পিটেয়ে হত্যা করেছে। আমি হত্যাকারীদের বিচার চাই। পাগলা থানার ওসি মো. রাশেদুজ্জামান বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।