দেশ সমাচার ডেস্ক : ওজন বাড়ানোর জন্য যে ৭ খাবারের প্রতি মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন। ওজন বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন উপায় বেছে নেন অনেকে। যার কারণে নানা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। আসুন জেনে নেওয়া যাক এমন ৭টি খাবারের যেগুলো খেলে কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই বাড়বে ওজন-

  • কিশমিশ

আঙুর ফল শুকিয়ে তৈরি করা হয় কিশমিশ। এছাড়া রোদে বা মাইক্রোওয়েভ ওভেনের সাহায্যে শুকিয়ে নেওয়া হয়। এতে থাকে ফসফরাস, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, কপার, জিংক, লৌহ, ফ্লোরাইড, পটাশিয়াম, ফোলাট, নিয়াসিন, কোলিন, ভিটামিন বি-৬ এবং রিবোফ্লাবিন জাতীয় পুষ্টিগুণ। ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক গ্লাস পানিতে কিশমিশ ভিজিয়ে রাখুন। এরপর সকালে উঠে খালি পেটে সেই পানি পান করুন। এটি শরীরে বাড়তি শক্তি দেবে সেইসঙ্গে সাহায্য করবে ওজন বাড়াতেও।

  • খিচুড়ি

খিচুড়ি রয়েছে কার্বোহাইড্রেড ও প্রোটিন যা স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন বাড়াতে কাজ করে। এছাড়া ডালে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন-সি, ফসফরাস, পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, খাদ্যআঁশ ও অ্যামাইনো এসিড। তাই ওজন বাড়াতে চাইলে খিচুড়িও খেতে পারেন।

  • আলু

আমাদের বেশিরভাগ রান্নার সঙ্গেই যোগ করা হয় আলু। সেদ্ধ আলুতে পাবেন শর্করা, তন্তু, খনিজ লবণ, ভিটামিন ও উদ্ভিজ্জ প্রোটিন। আপনি যদি প্রতিদিনের খাবারে আলু যোগ করেন তবে স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন বাড়ানো সহজ হবে। প্রতিদিন দুটি করে সেদ্ধ আলু খেতে পারেন।

  • ডিম

একটি সহজ, সুস্বাদু ও পুষ্টিকর খাবার হলো ডিম। এটি দামেও বেশ সহজলভ্য। এতে থাকে প্রচুর প্রোটিন, যা স্বাস্থ্যকরভাবে ওজন বাড়াতে কাজ করে। ডিমের কুসুমে থাকে প্রচুর ক্যালরি। এটিও ওজন বাড়াতে কার্যকরী।

  • বাদাম

পরিচিত এই শুকনো ফলে রয়েছে প্রচুর ক্যালরি, ফাইবার, প্রোটিন এবং ভিটামিন ই। বাদাম খেলে ওজন বৃদ্ধি পায়। তাই প্রতিদিনের খাবারে এক মুঠো হলেও বাদাম রাখার চেষ্টা করতে পারেন।

  • ভাত ও ভাতের মাড়

ভাতে থাকে প্রচুর কার্বো-হাইড্রেড। এটি আমাদের ওজন বাড়ানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। ভাতের পাশাপাশি ভাতের মাড়ও ওজন বাড়াতে কাজ করে।

  • মাছ

প্রতিদিনের খাবারে মাছ রাখুন। এতে থাকা প্রচুর আ্যমাইনো এসিড, ভিটামিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, পটিশিয়াম, ভিটামিন ‘এ’ ও ‘বি’। এসব উপাদান ওজন বাড়াতে সাহায্য করবে।