দেশ সমাচার ডেস্ক : নতুন সার্কিট ব্রেকারের উপর ভর করে শেয়ারবাজারে চাঙ্গাভাবে লেনদেন শেষ হলো আজ। শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি দরপতনের সর্বোচ্চ সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে। এতে করে আজ বুধবার শেয়ারবাজারে মূল্য সূচকের বড় উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিকে আজ ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ১৫৫ পয়েন্ট বা ২ শতাংশ বেড়েছে। সেই সাথে ডিএসইতে টাকার অংকে লেনদেনও কিছুটা বেড়েছে।

প্রসঙ্গত, শেয়ারবাজারে লাগামহীন পাগলা ঘোড়ার মতো মূল্য সূচকের দরপতন ঠেকাতে গেলো দিন বিএসইসি দরপতনের সর্বোচ্চ সীমা নির্ধারণ করে দেয়। নতুন বিধি মোতাবেক শেয়ার দর সর্বোচ্চ কমতে পারবে ২ শতাংশ পর্যন্ত। আর শেয়ার দর সর্বোচ্চ বাড়তে পারবে ১০ শতাংশ।

এদিন ডিএসইতে ৭৭৩ কোটি ১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। গেলো দিন থেকে ২৬ কোটি ৯২ লাখ টাকা বেশি। এর আগের দিন ডিএসইতে ৭৪৬ কোটি ৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, ডিএসই প্রধান বা ডিএসইএক্স সূচক ১৫৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৬ হাজার ৬৩০ পয়েন্টে। অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৩০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ৪২৯ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ৪১ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৪১৫ পয়েন্টে।

এদিকে আজ ডিএসইতে ৩৭৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৩৬৫টির, কমেছে ৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১০টির।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও সূচকের উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে। আজ সিএসই সার্বিক সূচক সিএসপিআই ২৪ পয়েন্ট বেড়েছে। এদিন সিএসইতে ২৪ কোটি ৪৫ লাখ ১১ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।