বাংলাদেশ ফাইন্যান্স

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব নিউ অরলিন্স এর ইকোনমিকস্ অ্যান্ড ফাইন্যান্স বিভাগে অধ্যাপক, ইসলামিক ব্যাংকিং এবং ফাইন্যান্স স্কলার অধ্যাপক ড. মো. কবির হাসান বলেছেন, ইসলামিক অর্থায়নকে কাজে লাগাতে পারে বাংলাদেশ ফাইনান্স।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ফাইন্যান্স লিমিটেড কর্তৃক আয়োজিত “এ প্রাইমার ইন ইসলামিক ব্যাংকিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স” শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনারে প্রধান আলোচক হিসেবে অংশগ্রহন করে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। গ্রুপ হেড অব এইচ আর আহসানুজ্জামান সুজনের শুভেচ্ছা বক্তব্যের মাধ্যমে ভার্চুয়াল এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে সেমিনারে যুক্ত হয়ে ইসলামিক উন্নয়ন ব্যাংক পুরস্কারপ্রাপ্ত এ অধ্যাপক উন্নয়ন অর্থনীতি, পুঁজিবাজার, ইসলামী অর্থনীতি, মুদ্রা অর্থনীতি, সামষ্টিক অর্থনীতি, টেকসই অর্থনীতি, ইসলামিক ব্যাংকিং ও ফাইন্যান্স এর আন্তর্জাতিক অর্থ ও বাণিজ্যের ওপর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য দেন। এসময় ইসলামিক ব্যাংকিং এবং ফাইন্যান্সের ওপর সার্বিক বিষয়ে  আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ ফাইন্যান্স লিমিটেড, বিডি ফাইন্যান্স সিকিউরিটিজ লিমিটেড এবং বিডি ফাইন্যান্স ক্যাপিটাল লিমিটেডের কর্মকর্তারা।

কি নোট স্পিকার হিসেবে তিনি বিশ্ব্যাংক, আইএমএফ, আফ্রিকান ডেভোলপমেন্ট ব্যাংক, ইসলামিক ডেভোলপমেন্ট ব্যাংকসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে পরামর্শক হিসেবে অর্জিত অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন বাংলাদেশ ফাইন্যান্সের কর্মকর্তাদের সাথে। তিনি জোর দিয়ে বলেন, আগামী এক দশকে বাংলাদেশে ইসলামিক ব্যাংকিং ও ফাইন্যান্সিং অনেক উন্নতি করবে।

সেমিনারের দ্বিতীয় সেশনে সম্মানীত অতিথি হিসেবে যুক্ত হন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক নির্বাহী পরিচালক ও বাংলাদেশ ফাইন্যান্সের শরি’আহ্ সুপারভাইজরি কমিটির সদস্য আব্দুল আউয়াল সরকার। তিনি ইকুইটি ও ট্রেডভিত্তিক ইসলামিক ফাইন্যান্সিয়াল প্রডাক্টে শরি’আহ্’র ব্যবহার নিয়ে বিশদ আলোচনা করেন।

এছাড়া সেমিনারে যুক্ত হন বাংলাদেশ ফাইন্যান্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কায়সার হামিদ। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ফাইন্যান্স ইসলামিক উইং- বাংলাদেশে এনবিএফআই সেক্টরে রোল মডেল ও কেস স্টাডি হওয়ার প্রত্যাশায় কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ইসলামিক ফাইন্যান্স বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে ওয়েলফেয়ার ফাইন্যান্সিং ও শরি’আহ্ সম্মতভাবে ফাইন্যান্সিং এর মাধ্যমে আর্থসামাজিক উন্নয়ন, এসডিজি বাস্তবায়ন, রিটেইল ও এসএমই সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালক করে যাচ্ছে; দারিদ্রতা দূরীকরণে ব্যাপক ভূমিকা পালন বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ ফাইন্যান্স ইসলামিক উইং- এই অগ্রযাত্রায় অগ্রনায়কের ভূমিকা পালন করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন কায়সার হামিদ। সেমিনারে অর্জিত জ্ঞান সদ্য প্রস্ফুটিত বাংলাদেশ ফাইন্যান্স ইসলামিক উইং এর জন্য বিশেষ ভূমিকা রাখবে, পাশাপাশি সেমিনারে আলোচিত কী নোট চলার পথে পাথেয় হবে জানিয়ে অংশগ্রহণকারীদের প্রতি ধন্যবাদ জানান তিনি।

পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন বাংলাদেশ ফাইন্যান্সের ইসলামিক উইং এর হেড অব প্রডাক্টস মো. আবু ইউসুফ।