শৈত্যপ্রবাহ

ঘন কুয়াশার চাদরে ঢেকে আছে দিনাজপুরের আশপাশের জনপথ। ভোর বেলায়ও হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাফেরা করছে যানবাহন। এতে বিপাকে পড়েছে স্বল্প আয়ের মানুষ।

আজ শনিবার (১ জানুয়ারী ২০২২) সকাল ৬টায় দিনাজপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১২. ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৯৯ শতাংশ।

বাসচালক রহিম গণমাধ্যমকে বলেন, গেলো কয়েক দিনের তুলনায় শনিবার ভোর রাত থেকে কুয়াশার পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। যার জন্য গাড়ি চালাতে সমস্যা হচ্ছে। সময় মতো গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছি না।

দিনমজুর আমজাদ হোসেন (৫৮) বলেন, বয়স অনেক বাবা। তবুও কাজ করেই খেতে হয়। ছেলেরা বউ নিয়ে আলাদা সংসার করে। সংসার চালানোর জন্য কষ্ট করে এই কুয়াশার মধ্যেই কাজে বের হয়েছি।

দিনাজপুর আবহাওয়া অফিসের ইনচার্জ তোফাজ্জল হোসেন জানান, দিনাজপুরে সকাল ৬টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসের আর্দ্রতা ৯৯ শতাংশ, বাতাসের  গতিবেগ ঘণ্টায় ৪-৬ কিলোমিটার, তবে বেলা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এটি ঘণ্টায় ৯-১২ কিলোমিটার পর্যন্ত উন্নীত হতে পারে।