brac-bb

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্র্যাক ব্যাংক ২০২০-২০২১ অর্থবছরে কুটির শিল্প, অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি  খাতে সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় ঋণ বিতরণে অসাধারণ সাফল্যের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের স্বীকৃতি লাভ করেছে।

গেলো ২৮ ডিসেম্বর, ২০২১ এক অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির এর নিকট থেকে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে লক্ষ্যমাত্রা পূরণের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রশংসাপত্র গ্রহণ করেন ব্র্যাক ব্যাংক এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড চিফ অপারেটিং অফিসার মো: সাব্বির হোসেন।

করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড ও ব্যবসায় পরিবেশ পুনরুজ্জীবিতকরণ ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সুষ্টি করতে কুটির শিল্পসহ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য স্বল্প সুদে বিশ হাজার কোটি একটি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে সরকার। এই প্রণোদনার প্যাকেজের আওতায় এপ্রিল ২০২০-জুন ২০২১ সময়কালে ১,৫০০ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করে ব্র্যাক ব্যাংক, যা ব্যাংকিং খাতে সর্বোচ্চ।

উল্লেখ্য, প্রণোদনার দ্বিতীয় পর্যায়ে জুলাই ২০২১-জুন ২০২২ সময়ে নির্ধারিত ১,৪০০ কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ইতেমধ্যেই ৮৯৩ কোটি টাকা বিতরণ সম্পন্ন করেছে ব্র্যাক ব্যাংক।

কোভিড-১৯ এর কারণে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প খাতের ব্যবসায়ের খারাপ অবস্থা কাটিয়ে ওঠতে তাদের সাহায্য করতে নিজ উদ্যোগে এগিয়ে এসেছে ব্র্যাক ব্যাংক। সুদের হারে ভতুর্কিসহ এই ঋণ সুবিধা উদ্যোক্তাদেরকে মহামারীর ক্ষতি কাটিয়ে ওঠতে সাহায্য করছে। মহামারীর ভয়াবহ ক্ষতি কাটিয়ে ওঠে সিএমএসএমই উদ্যোক্তাদের নতুন করে ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করছে এই সহজ ঋণ সুবিধা।

ব্র্যাক ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও সেলিম আর. এফ. হোসেন এই বিষয়ে বলেন, ‘ব্র্যাক ব্যাংক এর উপর আস্থা রেখে টার্গেটের অতিরিক্ত ঋণ বিতরণের দায়িত্ব দেওয়ায় আমরা বাংলাদেশ ব্যাংক-কে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দিকনির্দেশনা ও নীতি সহায়তা এই টার্গেট পূরণের ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রান্তিক ও তৃণমূল পর্যায়ে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের সহজ অর্থায়ন নিশ্চিত করতে ব্র্যাক ব্যাংক দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। করোনা মহামারীর প্রেক্ষিতে উদ্যোক্তাদের সহায়তায় আমরা আমাদের কার্যক্রম আরও জোরদার করেছি। আমরা মনে করি, ভর্তুকিসহ ঋণ বিতরণের ফলে সিএমএসএমই খাতে প্রাণ ফিরে আসবে এবং উৎপাদনক্ষমতা মহামারী পূর্বের পর্যায়ে ফিরে যাবে।’