হোয়াটসঅ্যাপ ছাড়ছেন লাখ লাখ ভারতীও

হোয়াটসঅ্যাপ

হোয়াটসঅ্যাপ থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন বহু ভারতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় আড়াই কোটি মানুষ অ্যাপটি ছেড়ে সিগনাল বা টেলিগ্রামে যোগ দিয়েছেন বলে জানিয়েছে, টাইমস অব ইন্ডিয়ার ! এর মধ্যে আছে কয়েক লাখ ভারতীয়।

হোয়াটসঅ্যাপের জন্য দুনিয়ার সবচেয়ে বড় বাজার ভারত, ৩৪ কোটিরও বেশি মানুষ দেশটিতে নিয়মিত অ্যাপটি ব্যবহার করেন।

ইনটেলিজেন্স ডেটা বলছে, জানুয়ারির ৭ তারিখে হোয়াটসঅ্যাপ তাদের নতুন প্রাইভেসি পলিসি সামনে আনার পর থেকেই ভারতের অন্তত ১৭ লাখ মানুষ টেলিগ্রাম অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন ও ১২ লাখ মানুষ সিগনাল করেছেন।

অন্য দিকে ভারতের প্রধান খবরের কাগজগুলোতে বিরাট বিজ্ঞাপন দিয়েও মানুষের আশঙ্কা দূর করতে হিমশিম খাচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ, নতুন বছরের প্রথম সাত দিনেই তাদের ডাউনলোডের হার কমেছে ১১ শতাংশ।

গত বৃহস্পতিবার সকালে হোয়াটসঅ্যাপ খোলামাত্র তাদের ফোনে পপ-আপ করে একটি মেসেজ, যাতে জানানো হয় হোয়াটসঅ্যাপ তাদের ইউজার ডেটা ফেইসবুক ও তার প্রোডাক্টগুলোর সঙ্গে শেয়ার করে যাবে।

যদিও এটা খুব নতুন কথা নয় এবং সেই ২০১৪ সাল থেকেই হোয়াটসঅ্যাপের মালিকানা ফেসবুকেরই, তারপরও নিজস্ব তথ্যের গোপনীয়তা বজায় রাখা নিয়ে মানুষের আশঙ্কাই হোয়াটসঅ্যাপ সম্পর্কে তাদের সন্দিগ্ধ করে তুলেছে – বিবিসিকে বলছিলেন ইন্ডিয়ান স্কুল অব এথিক্যাল হ্যাকিংয়ের অধিকর্তা সন্দীপ সেনগুপ্ত।

তার কথায়, ‘প্রাইভেসির ক্ষেত্রে মানুষ যেগুলোকে মূল্য দেয়, যেমন এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন, ডেটা শেয়ার না-করা ; এই সব ফিচার হোয়াটসঅ্যাপে ছিল বলেই কিন্তু মানুষ সেটা বেছে নিয়েছিল, এই অ্যাপটা এত জনপ্রিয় হয়েছিল।’

‘অন্য দিকে গোপনীয়তা লঙ্ঘনের জন্য ফেসবুকের দুনিয়া জুড়ে মারাত্মক কুখ্যাতি। তাদের বিরুদ্ধে অজস্র মামলা হয়েছে, বিপুল জরিমানা হয়েছে – প্রাইভেসি ভায়োলেশনের ক্ষেত্রে তারা একেবারে হ্যাবিচুয়াল অফেন্ডার বলা যেতে পারে।’

আরও পড়ুন:- ভারতে হাসপাতালে ভয়াবহ আগুন, ১০ নবজাতকের মৃত্যু

 

1 মন্তব্য

Leave a Reply