সৌদির ২৫ হাজার ভিসা বাতিল

সৌদিপ্রবাসীদের অনেকেরই আটকে পড়েছেন

সৌদিপ্রবাসীদের অনেকেরই আটকে পড়েছেন, ‘কফিলের’ (নিয়োগকারী) অনুমতি না পাওয়ায় সে দেশে যাওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

ফ্লাইটের সংখ্যা বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হলেও এমন পরিস্থিতিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদকে নিয়ে গতকাল বুধবার ঢাকায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, ওমান, ইরাক ও মালয়েশিয়ার মিশনপ্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

সে বৈঠকের পর পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, সৌদি আরবে গিয়ে কাজ করতে হলে চাকরিদাতাদের কাছ থেকে ছাড়পত্র লাগবে। তা না হলে কেউ কাজের উদ্দেশ্যে যেতে পারবেন না।

এমন পরিস্থিতিতে সরকারের করণীয় কী জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা বলেন আমরা কী করতে পারি? আপনি চাকরি দেবেন বলেছেন, কিন্তু দিলেন না। এ ক্ষেত্রে আমরা কী করতে পারি?’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আটকে পড়া প্রবাসী কর্মীদের রাস্তায় না নামার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘যেহেতু তারা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত, তাদের নতুন চাকরি খুঁজতে হবে। তাদের বেশি অসুবিধা হওয়ার কথা না। মালিক যদি চাকরি না দেন তবে কী করার আছে? সরকার তো কারো চাকরি দিতে পারে না।’

আরো পড়ুন- সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক রোববার

তিনি আরো জানান, এ পর্যন্ত ছয় হাজার লোক সৌদি আরব গেছেন এবং তাঁরা অনুমতি নিয়ে গেছেন।

জানা গেছে, সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য প্রায় ২৫ হাজার বাংলাদেশির নামে ভিসা ইস্যু করা হয়েছিল। সেই ভিসার একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ ছিল। করোনার কারণে যাতায়াত বন্ধ থাকায় তাঁরা যেতে পারেননি। অনেক ক্ষেত্রে ওই বাংলাদেশিদের কাজের চাহিদাও কমেছে। ফলে পরিস্থিতি অনুযায়ী চাহিদা সাপেক্ষে নতুন করে ভিসা ইস্যু করতে হবে।

 

Leave a Reply