মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানে গ্রেপ্তার হওয়ার পর আজ (সোমবার) প্রথমবারের মত সশরীরে অং সান সুচিকে আদালতে হাজির করা হয়েছে।

তার আইনজীবী তায়ে মঙ মঙ গণমাধ্যমকে বলেছেন,রাজধানী নেপিডোর আদালতে হাজির করার সময় সু চিকে দেখে সুস্থই মনে হয়েছে। শুনানির আগে সু চি তার আইনজীবীদের সঙ্গে আধা ঘণ্টার মত মুখোমুখি বৈঠকও করেছেন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সু চির দল এনএলডি সরকারকে উৎখাত করে মিয়ানমারের ক্ষমতার দখল নেয় সেনাবাহিনী। গ্রেপ্তার করা হয় সু চিকে।

প্রথমে তার অবস্থান নিয়ে ধোঁয়াশা থাকলেও পরে জানা যায় তাকে তার নেপিডোর বাড়িতে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। সু চি ছাড়াও প্রায় চার হাজার মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ওই অভ্যুত্থানের পর থেকে।

সু চির বিরুদ্ধে দুটি আদালতে কয়েকটি মামলা করা হয়েছে, যেগুলোর বেশিরভাগই ছোটখাটো অভিযোগে।

সু চির বিরুদ্ধে সবচেয়ে গুরুতর যে অভিযোগটি রয়েছে তাতে দোষী সাব্যস্ত হলে তার ১৪ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।

আরও পড়ুনঃ- গাজায় সামরিক মহড়া চালাল হামাস

এর আগের শুনানিগুলোতে ৭৫ বছর বয়সী সু চিকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভার্চুয়ালি আদালতে উপস্থাপন করা হয়। কিন্তু এবার তাকে সশরীরে আদালতে আনা হয়েছে।