সঠিক চিকিৎসায় হাঁপানি ভালো হয়

বাংলাদেশে বর্তমানে ৭০ লাখের বেশি হাঁপানি রোগী আছে। প্রতি বছর নতুন করে আরও ৫০ হাজার লোক এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। রোগের ধরন অনুযায়ী কম বা বেশি সময় হলেও এ রোগ থেকে রোগীকে মুক্ত রাখা সম্ভব। বাংলাদেশে বর্তমানে হাঁপানির আধুনিক সব চিকিৎসা ব্যবস্থা থাকলেও মাত্র পাঁচ শতাংশ রোগী চিকিৎসকের কাছে যান। অজ্ঞতাবশত তথাকথিত ঝাড়ফুঁক, তাবিজ-কবজ ইত্যাদি চিকিৎসা নিতে গিয়ে রোগের জটিল অবস্থা হয়। হাঁপানির লক্ষণ হচ্ছে-

-বুকের ভেতর বাঁশির মতো সাঁই সাঁই শব্দ হওয়া

– শ্বাস নিতে ও ছাড়তে কষ্ট হওয়া

– দম খাটো অর্থাৎ ফুসফুস ভরে দম নিতে না পারা

– ঘন ঘন কাশি

– বুকে আঁটসাঁট অথবা দম বন্ধ ভাব

– স্বস্তিতে রাতে ঘুমাতে না পারা

রোগীর জানা দরকার

হাঁপানি রোগীদের ভ্রান্ত ধারণা আছে, এ রোগের আধুনিক চিকিৎসা এ দেশে নেই। তাই তারা বিদেশে গিয়ে বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় করে। অশিক্ষিত ও দরিদ্র রোগীরা মনে করেন তাবিজ-কবজ, পানিপড়া, মালাপড়া দিলে এ রোগ সেরে যাবে। রোগীদের জানা দরকার সঠিক সময়ে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে চিকিৎসা গ্রহণ করলে হাঁপানি থেকে সম্পূর্ণ মুক্ত হওয়া সম্ভব।

অধ্যাপক ডা. গোবিন্দ চন্দ্র দাস, অ্যালার্জি ও অ্যাজমা রোগ বিশেষজ্ঞ

দি অ্যাজমা সেন্টার, পান্থপথ, ঢাকা, মোবাইল ফোন : ০১৭২১৮৬৮৬০৬

Leave a Reply