ঢাকা কলেজ

শিক্ষকদের আশ্বাসে সড়ক ছেড়েছেন ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) বেলা ১১টায় ঢাকা কলেজের শিক্ষক ও নিউমার্কেট থানা পুলিশের সমন্বিত আশ্বাসে সড়কের অবরোধ তুলে নেয় শিক্ষার্থীরা। এ সময় বাস মালিক সমিতির সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে হাফ পাসের বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দেন তারা।

এর আগে সকাল ১০টার দিকে হাফ ভাড়া না নেওয়ার প্রতিবাদে ও বাসে পরিবহন শ্রমিকদের বাজে আচরণ বন্ধের দাবিতে ঢাকা কলেজের সামনের সড়ক অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা এ সময় বেশ কয়েকটি গাড়ি আটকও করেন তারা।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, মিরপুর রোডে চলাচল করা বাসগুলো ওয়েবিলের অজুহাতে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অল্প দূরত্বের পথেও অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে। শিক্ষার্থীরা হাফ পাস দিতে চাইলে জোরপূর্বক গাড়ি থেকে নামিয়ে দেওয়া, খারাপ আচরণসহ নানা ধরনের হয়রানির শিকার হতে হয়। সম্প্রতি তেলের দাম বাড়ার অজুহাতে সিএনজিচালিত বাসগুলোতে ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। তাই এসব সমস্যার সমাধানে শনিবারের মধ্যে কোনো ঘোষণা না এলে পুনরায় কঠোর আন্দোলন করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে ঢাকা কলেজ শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ড. মো. আব্দুল কুদ্দুস সিকদার বলেন, শিক্ষার্থীদের অনেক অভিযোগ আছে। তাদের থেকে হাফ ভাড়া নেওয়া হয় না। অনেক বাসের স্টাফরা সময় খারাপ ব্যবহার করেন। ধাক্কা দিয়ে গাড়ি থেকে নামিয়ে দেওয়া নজিরও রয়েছে। তবে এসবের সমাধান তো গাড়ি আটকে, রাস্তা অবরোধ করে হবে না। আমরা শিক্ষার্থীদেরকে বুঝিয়েছি যে মালিক সমিতির সঙ্গে বসে এসব সমস্যার সমাধান করব। তারাও আমাদের আশ্বাসে সড়ক ছেড়ে দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমরাও যথেষ্ট আন্তরিক।

ঢাকা কলেজ

মালিক সমিতির সঙ্গে আলোচনার কথা জানিয়ে নিউমার্কেট থানার পুলিশ পরিদর্শক গিয়াস উদ্দিন। তিনি বলেন, হাফ পাসের দাবিতে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করেছিল। পরে ঢাকা কলেজের শিক্ষকসহ আমরা শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে বললে তারা রাস্তা ছেড়ে দেয়। অল্প সময়ের মধ্যে মালিক সমিতির সঙ্গে কথা বলে আমরা সমাধানে আসার চেষ্টা করব।

এ সময় আরও উপস্থিতি ছিলেন- নিউমার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স. ম. কাইয়ুম, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো. ইয়াছিন, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (অপারেশন) ডাবলু হোসেন, ঢাকা কলেজ শিক্ষক পরিষদের কোষাধ্যক্ষ ওবায়দুল করিম রিয়াজ, দক্ষিণ হলের তত্ত্বাবধায়ক মোহাম্মদ আনোয়ার মাহমুদ, নিবিড় পর্যবেক্ষণ কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক পুরঞ্জয় বিশ্বাস, মনোবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. আবু সৈয়দ মো.আজিজুল ইসলামসহ অন্যান্য শিক্ষকরা।