কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের রামুর জোয়ারিয়ানালা গ্রামীণ ব্যাংকের পাশে (মোরাপাড়া) বেপরোয়া শ্যামলী বাসের সাথে প্রাইভেট কারের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও কয়েক যাত্রী।

বুধবার রাত সাড়ে দশটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, চট্টগ্রামের চন্দ্রিকা এলাকার মৃত গোলাম কিবরিয়ার ছেলে মাসুদ কিবরিয়া, বায়েজীদ বোস্তামির আতুরার ডিপুর নুর আহমদ আহমদের ছেলে জানে আলম এবং পাহাড়তলীর মকবুল আহমদের ছেলে জামাল আহমদ।

আহতদের মাঝে শিশির দে’র নাম জানা গেলেও পরিচয় জানা যায়নি। বাকিদেরও নাম-ঠিকানা পাওনা যায়নি। নিহত ও নাম পাওয়া আহত ব্যক্তি ৪ জনই প্রাইভেট কারের যাত্রী। তারা চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার যাচ্ছিলেন।

জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল শামসুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কক্সবাজারমুখী প্রাইভেট কার ও চট্টগ্রামমুখী শ্যামলী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে কারটি বাসের নিচে আটকে যায়। সেখান থেকে নিহতদের উদ্ধার করেছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। উদ্ধার করাদের মাঝে শিশিরকে মুমূর্ষু অবস্থায় স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রামু ক্রসিং তুলাতলী হাইওয়ে ইনচার্জ পরিদর্শক আবু আবদুল্লাহ জানান, চট্টমেট্টো-গ-১৩-৫২১১ নাম্বারের প্রাইভেট কারটির সাথে ঢাকামেট্টো-ব-১৫-১১০৫ নাম্বারের শ্যামলী বাসের সংঘর্ষ ঘটে। এতে কারের তিনযাত্রী নিহত হয়েছেন। গাড়ি দুটি হাইওয়ে পুলিশ জব্দ করেছে। গাড়িগুলো নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে যানচলাচল স্বাভাবিক করতে রাত ১টাতেও তারা ঘটনাস্থলে রয়েছেন বলে উল্লেখ করেন ওসি।