আত্মহত্যা
আত্মহত্যা

রাজধানীর সবুজবাগের মায়াকাননে রাজীব চক্রবর্তী (৩২) নামে এক যুবকের গলায় ফাঁস দেওয়া মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৫ অক্টোবর) দিবাগত রাত ১টায় মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। পুলিশ জানিয়েছে, ওই যুবক আত্মহত্যা করেছে।

নিহতের বড় ভাই রাজেষ চক্রবর্তী বলেন, ‘টিউশনি শেষে বাসায় ফিরে রাজীব সরাসরি তার রুমে চলে যায়। রাত ১১টার দিকে খাওয়ার জন্য ডাক দিলে সে আর দরজা খুলে না। কিছুক্ষণ পর আবার ডাকলাম, কিন্তু দরজা খুলে না। পরে বাড়ির মালিককে ডেকে আনি। ফাঁকা দিয়ে দেখি রাজীব গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলছে। এরপর সবুজবাগ থানায় খবর দেওয়া হয়।’

আরো পড়ুন : পটুয়াখালীর দশমিনায় চিনিগুড়া ধানের বাম্পার ফলন

‘সে আমাকে বলত, দাদা পড়া শেষ করলাম কিন্তু চাকরি পাই না। এই টিউশনি করে কতদিন চলবে। সব সময় চাকরি নিয়ে মানসিকভাবে হতাশা প্রকাশ করত। ধারণা করা হচ্ছে, হতাশা থেকে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে রাজীব।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মতিঝিল বিভাগের সবুজবাগ জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) মনতোষ বিশ্বাস বলেন, রাতে আমার এলাকায় এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। পরে তার সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে গভীর রাতে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢাকা মেডিকেলের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরো পড়ুন : শীতে শিশুদের বাড়তি সতর্কতায় যা জানা অত্যাবশ্যক

তিনি বলেন, পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, চাকরি না পাওয়ায় তার নিজের মধ্যে হতাশা কাজ করত। এ নিয়ে পরিবার থেকে তাকে চাপ দেওয়া হতো। সবকিছু মিলিয়ে সে রাতে নিজের রুমে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।