মেধাস্বত্ব চুরি মামলার
হাইকোর্ট।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে প্রকাশিত বইয়ের মেধাস্বত্ব চুরি ও গ্রন্থস্বত্ব জালিয়াতির ঘটনায় জারি করা রুলের ওপর বৃহস্পতিবার রায় ঘোষণার কথা থাকলেও আপারগতা প্রকাশ করেছেন আদালত।

দুপুরে হাইকোর্টে বিচারপতি জে বি এম হাসান এ রায় দিতে অপরাগতা জানিয়েছেন। এসময় তিনি বলেছেন “অন্য কোর্টে শুনানি করে রায়ের জন্য চেষ্টা করতে পারেন”। বিয়য়টি নিয়ে রিট করার প্রায় একবছর পরে আদালত এমন সিদ্ধান্ত জানালেন।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিনটি ধার্য করেছিলেন। আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন।

এর আগে মুজিববর্ষে দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ এর জন্য আটটি বই কেনার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। সেই আটটি বইয়ের মধ্যে তিনটি বই নিয়েই জালিয়াতির অভিযোগ উঠে। এ বিষয়ে বিচার বিভাগীয় অথবা স্বাধীন তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে ২০২০ সালের ৩১ আগস্ট হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।