ভুট্টা চাষে আগ্রহ বেশি কৃষকের, পাটে অনীহা

ভুট্টা চাষে

ধানসহ অন্যান্য ফসলের তুলনায় কম খরচে অধিক ফলন হওয়ার কারনে এখন ভুট্টা চাষে বেশ আগ্রহ বেড়েছে দিনাজপুরের  কৃষকদের। দিনাজপুরের বিভিন্ন এলাকার ঘুরে কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়,প্রত্যেক মৌসুমে কৃষকদের উৎপাদন খরচের তুলনায় ধানের বাজার মূল্য কম থাকায় ধান চাষ করে প্রায় সময়ই তাদের লোকসান গুনতে হয়।আর তাই ধানের বিকল্প হিসেবে অন্যান্য ফসলের তুলনায় কিছুটা কম খরচে ভুট্টা চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন এই এলাকার কৃষকরা ।  

অপরদিকে ফুলবাড়ী উপজেলার কৃষকেরা পাট চাষে আগ্রহ হারাচ্ছে । এক সময়ের সোনালি আঁশ খ্যাত পাটের চাষ ফুলবাড়ী উপজেলায় অনেকটাই এখন কমে গেছে। কারন হিসেবে কৃষকরা বলছেন, জমিতে স্বল্প সময়ে অধিক ফসল ফলানোর প্রবনতা বৃদ্ধি,পাট পচানোর জন্য পানি সংকট, বিভিন্ন সময়ে দরপতনসহ নানা কারণে পাট চাষ যেন এখন কৃষকের অনিহা আর অবহেলায় পরিনত হয়েছে।

তারা জানান, প্রতি ১ বিঘা জমিতে গড়ে ৭ থেকে ৮ মণ পাট উৎপাদন হয়। আর প্রতি ১মণ পাট র্সবােচ্চ ১ হাজার টাকা দরে বিক্রয় হয়। এক্ষেত্রে বাজার মূল্য হিসেবে উৎপাদন খরচ বেশি হয় এবং অনেক সময় পাটের দরপতন ঘটে ও পাট পচানোর জন্য পানি সংকট হয়,সে কারনে তাদের পাট চাষে অনিহা।জমিতে স্বল্প সময়ে অধিক ফসল ফলানোর প্রবণতা বৃদ্ধি, পচানোর পানি সংকট, বিভিন্ন সময়ে দরপতনসহ নানা কারণে পাট চাষ যেন এখন অনীহা আর অবহেলায় পরিণত হয়েছে কৃষকের ।

শিবনগরের ভুট্টা চাষি হামিদুল হক জানান, কম খরচে অধিক ফলন হওয়ায় অন্য ফসলের তুলনায় ভুট্টা চাষ করা লাভজনক। তাই তিনি এ মৌসুমে প্রায় ৬ একর জমিতে ভুট্টা চাষ করে অধিক লাভজনক হয়েছেন তিনি।

উপজলো কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে বলছে, এবছর ২৮শ ২০ হেক্টর জমিতে মুকুট,পালওয়ান, এনকে-৪০, পেসিফিক ৯৯৯, ৯৮১, এনএইচ ৭৭২০ জাতের ভুট্টার ফলন প্রতি হেক্টরে ৯ দশমিক ৫ মে. হিসেবে ২৯হাজার ৩ শত১৫মে. লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এটির লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে চাষাবাদ হয়েছে ৩ হাজার ৩০হেক্টর জমিতে যা বেড়ে প্রতি হেক্টর জমিতে ৯দশমিক৬৬ মে. গত বছরের তুলনায় বেশি হয়ে ২হাজার ৫শ ২ মে. দাড়িয়েছে।
অপরদিকে উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে কিছু কিছু জমিতে তোশা জাতের পাট এবছর ৫০ হেক্টর জমিতে, প্রতি হেক্টরে ১১দশমিক৮৩ বেল হিসেবে ৫শ ৯১দশমিক ৫বেল পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা ৪৫ হেক্টর জমিতে চাষবাদ হয়েছে,গত বছরের লক্ষ্যমাত্রাও অর্জিত হয়নি। এভাবে দিন দিন পাট চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন কৃষকরা।

উপজলো কৃষি অফিসার হামীম আশরাফ বলেন, উপজেলার বেশ কিছু জায়গায় এ বছর ব্যাপকভাবে ভুট্টার চাষাবাদ হয়েছে। প্রতি হেক্টরে ভূট্টার ফলন প্রায় ৯ দশমিক ৬৬ মেট্রিক টন, যা অন্যান্য ফসলের তুলনায় অনেক বেশি ফলন।

আরো পড়ুন- ১ মণ ভুট্টার দাম ৬০০ টাকা, চাষে আগ্রহ বেড়েছে

 

 

 

2 মন্তব্য

Leave a Reply