ভারী বর্ষণের আভাস

কয়েকদিন বিরতির পর আবারো অতিভারী বর্ষণের আভাস দেখা দিয়েছে। এতে দিন ও রাতের তাপমাত্রা কিছুটা কমবে।আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, মৌসুমী বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এটির বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরের অন্যত্র মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার (০৮ জুলাই) সকাল নাগাদ রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলে জানায় আবহা্ওয়া অফিস। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের এবং ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে।

সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমবে। ঢাকায় দক্ষিণ/দক্ষিণ-পশ্চিম দিক থেকে এ সময় ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ থাকবে ১০-১৫ কিলোমিটার।

বৃষ্টিপাতের বর্তমান প্রবণতা আগামী তিনদিন অব্যাহত থাকবে বলে জানান আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ। এরপর কিছুটা কমে আবার বাড়ার আভাস দিয়েছেন তিনি।

এদিকে রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম এবং সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে দক্ষিণ অথবা দক্ষিণ-পূর্বদিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদী বন্দরসমূহকে এক নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বুধবার (০৭ জুলাই) দুপুর পর্যন্ত দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে সিলেটে, ১৩২ মিলিমিটার। ঢাকায় সামান্য বৃষ্টিপাত হয়েছে। বাতাসে আদ্রতার পরিমাণ ৯৩ শতাংশ।

আরো পড়ুন- ফাইনালে আর্জেন্টিনা