পাপুলের স্ত্রী ও মেয়েকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

পাপুলের

কুয়েতে গ্রেপ্তার লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের দুই কোটি ৩১ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও ১৪৮ কোটি টাকা পাচারের অভিযোগে তার স্ত্রী সেলিনাসহ চার জনের বিরুদ্ধে গত ১১ নভেম্বর মামলা করেন দুদকের উপপরিচালক মো. সালাহউদ্দিন।

অবৈধ সম্পদ ও অর্থ পাচারের অভিযোগের মামলায় সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম ও মেয়ে ওয়াফা ইসলামকে ১০ দিনের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেয়।

পাপুলের স্ত্রী সংসদ সদস্য সেলিনা ইসলাম ও মেয়ে ওয়াফা ইসলাম গত ২৬ নভেম্বর হাইকোর্টে আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন। বৃহস্পতিবার শুনানি শেষে আদালত আবেদনটি খারিজ করে দেয়। শুনানির সময় সেলিনা ইসলাম ও মেয়ে ওয়াফা ইসলাম আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

শুনানিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষে ছিলেন মো. খুরশীদ আলম খান। আর জামিন আবেদনের পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদার ও আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

দুই কোটি ৩১ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও ১৪৮ কোটি টাকা বিদেশে পাচারের অভিযোগে শহিদ ইসলাম পাপুল ও তার স্ত্রী সেলিনাসহ চার জনের বিরুদ্ধে গত ১১ নভেম্বর মামলা করেন দুদকের উপপরিচালক মো. সালাহউদ্দিন।

পাপুল, তার স্ত্রী ও মেয়ে ছাড়াও শ্যালিকা জেসমিন প্রধান এ মামলার আসামি।

অর্থ ও মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেফতারের পর সেখানকার কারাগারে আটক আছেন সংসদ সদস্য শহিদ ইসলাম পাপুল।

চলতি বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি কাজী পাপুলের বিরুদ্ধে মানবপাচারসহ আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও বিদেশে পাচারের অভিযোগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক।

আরও পড়ুন:- কুয়েতের কারাগারে বাংলাদেশী এমপি

1 মন্তব্য

Leave a Reply