‘দলবদ্ধ ধর্ষণ’, নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ নিখোঁজ

গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে মধ্যযুগীয় কায়দায় বিবস্ত্র করে স্বামীকে বেঁধে রেখে গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের সেই ভিডিও ভাইরাল হলে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। তবে সেখানে নির্যাতিতা গৃহবধূ বা তার পরিবারের কাউকে পাওয়া যায়নি।

গত ২ সেপ্টেম্বর নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নে দলবদ্ধ ধর্ষণ ও নির্যাতনের ওই ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের পর গৃহবধূ ও তার পরিবার এলাকা ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রবিবার দুপুরের পর থেকে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে তা স্থানীয় প্রশাসনের নজরে আসে।

ঘটনার ৩২ দিন অতিবাহিত হলেও ভুক্তভোগী পরিবার এ ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ দায়ের করতে পারেনি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই গৃহবধূর বিয়ে হয় বছর তিনেক আগে। স্বামী তাকে রেখে দ্বিতীয় বিয়ে করে অন্যত্র বসবাস করতে থাকে। দীর্ঘদিন স্বামীর কোনো যোগাযোগ ছিল না। গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে স্বামী তার সঙ্গে দেখা করতে আসে। মাদক ব্যবসায়ী দেলোয়ার বিষয়টি জানতে পেরে তার লোকজন নিয়ে রাত ১০টার দিকে গৃহবধূর ঘরে প্রবেশ করে ‘অনৈতিক’ কাজের অভিযোগ এনে তাকে মারধর শুরু করে। একপর্যায়ে ওই নারীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে তারা।

স্থানীয়রা আরও জানায়, খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ রবিববার বিকেল ৪টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযুক্ত এক যুবককে আটক করে। আটক আবদুর রহিম (২৭) একলাশপুর ইউনিয়নের পূর্ব একলাশপুর গ্রামের হাড়িধন বাড়ির বাসিন্দা।

আরো পড়ুন- নোয়াখালীতে স্বামীর মারধরে স্ত্রীর মৃত্যু

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.হারুন উর রশীদ জানান, পুলিশ বর্তমানে ঘটনাস্থলে রয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। ভিকটিমের ঘরে তালা ঝুলছে, ওই গৃহবধূকে তার বসত ঘরে পাওয়া যায়নি। ভিকটিমকে পাওয়া গেলে জানা যাবে এটি ধর্ষণ না নির্যাতনের ঘটনা।

 

Leave a Reply