নেতানিয়াহু ইসরায়েল বিক্ষোভ
বিক্ষোভের ছবি

দখলদার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে দেশটির বামপন্থীরা। রাজধানী জেরুজালেমে তাঁর বাসভবনের বাইরে হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ করছে। নেতানিয়াহুর পদত্যাগ দাবিতে আবারও উত্তাল হয়ে উঠেছে ইহুদিবাদী ইসরাইল

রয়টার্স জানিয়েছে, নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে থাকা দুর্নীতির অভিযোগ ও করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থতার কারণে তাঁর পদত্যাগের দাবি করছে আন্দোলনকারীরা। জেরুজালেমে নেতানিয়াহুর বাসভবন, বিভিন্ন রাস্তার মোড়, ব্রিজের নিচে জড়ো হয় বিক্ষুব্ধরা। ক্ষমতা গ্রহণের পর এটিই তার বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ এটি। বিক্ষোভ দমাতে ব্যাপক ধরপাকড় চালিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী।

আরও পড়ুন :- চেক রিপাবলিকে অগ্নিকাণ্ড, ১১ জনের মৃত্যু

আরও পড়ুন :- তেলআবিব অলিগলিতে ফিলিস্তিনিদের দখলের গুঞ্জন

বিক্ষোভ থেকে নেতানিয়াহুর উদ্দেশে বড় করে ব্যানারে লেখা হয়, ‘আপনার সময় ঘনিয়ে এসেছে’।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আন্দোলন
ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে দেশটির বামপন্থীরা। ছবি :সংগৃহীত

শনিবার সেটি নেতানিয়াহুর ভবনের দিকে ধরে রাখে বিক্ষুব্ধ ইসরায়েলিরা। তারা ইসরায়েলের পতাকা নিয়ে সরকারবিরোধী স্লোগান দিতে থাকে। বিক্ষুব্ধদের অভিযোগ, সরকার মহামারি থামাতে ব্যর্থ হয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা বলেছেন, নেতানিয়াহু করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলার ক্ষেত্রেও চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন। বিক্ষোভকারীরা নেতানিয়াহুকে ‘ক্রাইম মিনিস্টার’আখ্যা দিয়েও তার পদত্যাগের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিক্ষোভকারীদের ওপর চড়াও হয় পুলিশ।

একইসঙ্গে, কর্মসংস্থান কমে যাচ্ছে, ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই এ ধরনের বিক্ষোভ চলছে ইসরায়েলে।

আরও পড়ুন :- নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠক করবেন সৌদি যুবরাজ!

দেশটির গণতন্ত্র ধ্বংসের অভিযোগও আনা হচ্ছে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে। শনিবার নেতানিয়াহুর দল লিকুদ পার্টি এক বিবৃতিতে এই আন্দোলনকে ‘বামপন্থীদের দাঙ্গা’ বলে আখ্যায়িত করেছে। একইসঙ্গে তাদের দাবি, ইসরায়েলি টিভি চ্যানেলগুলোও বামপন্থীদের আন্দোলনকে উৎসাহিত করছে।

জেরুজালেমের পাশাপাশি এদিন তেল আবিব ও কিয়াসারা শহরেও নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়।

আরও পড়ুন :- নিউজিল্যান্ডের আক্রান্তহীন ১০০ দিন