যৌন নির্যাতন

তরুণীকে যৌন নির্যাতন ও ভিডিও ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ঘটনার ভারতের কেরালায় মূলহোতা রিফাতুল ইসলাম ওরফে টিকটক হৃদয়সহ ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে বেঙ্গালুরু পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৭ মে) তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. শহিদুল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেন বেঙ্গালুরু পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করেছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশি তরুণীকে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে বেঙ্গালুরু পুলিশকে বার্তা দেয়া হয়েছে। বেঙ্গালুরু পুলিশ নারীসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে। রাজধানীর হাতিরঝিল থানায় করা মানবপাচার প্রতিরোধ দমন আইন ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় বাংলাদেশি আসামিদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।

দুই বছর ধরে নিখোঁজ এক তরুণীর ওপর অমানুষিক যৌন নির্যাতনের একটি ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

ওই ভিডিওর সূত্র ধরে অনুসন্ধান করে রিফাতুল ইসলাম হৃদয় নামে এক নির্যাতনকারীকে শনাক্ত করেছে পুলিশের তেজগাঁও বিভাগ।

রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকায় তার বাসা। সে এলাকায় টিকটক হৃদয় বাবু নামে পরিচিত। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে ভারতের কেরালায় সে ও তার বন্ধুরা মিলে ওই তরুণীকে নির্যাতন করে। সে এখন ভারতের পুনেতে অবস্থান করছে।

প্রাথমিক অনুসন্ধানের ভিত্তিতে পুলিশের ধারণা, ওই তরুণীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ভারতে পাচার করা হয়েছে। সেখানে তাকে আটকে রেখে যৌন নির্যাতন করা হচ্ছে। পাচার ও নির্যাতনের ঘটনায় হৃদয় ও তার বন্ধুরা জড়িত। হৃদয়ের বাসা তল্লাশি করে জাতীয় পরিচয়পত্র, জেএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড জব্দ করা হয়েছে। হৃদয়ের বন্ধুদের শনাক্তের পাশাপাশি তারা ভারতীয় নাকি বাংলাদেশি, সেটি তদন্ত করা হচ্ছে। এ ঘটনায় ওই তরুণীর বাবা বৃহস্পতিবার হাতিরঝিল থানায় মামলা করেছেন।

আরও পড়ুনঃ- র‍্যাবের ৫০ কর্মকর্তাকে পুলিশে বদলি