ট্রাফিক পুলিশ

ট্রাফিক পুলিশের উপর অভিমান করে নিজের বাইক পুড়িয়ে ফেললেন পাঠাও চালক শওকত আলী সোহেল। ঘটনাটি ঘটে বাড্ডা লিংক রোডে। কারণ তার গত দুই সপ্তাহ আগে একটি মামলা ছিল। কেরানীগন্জে তার ছোট একটি ব্যবসা ছিল।

মামলা না নিতে পুলিশকে আকুতি মিনতি করলেও তাতে কোনো লাভ হয় নি। এজন্য তিনি অভিমান করে বাইকে আগুন ধরিয়ে দেন। করোনা মাহমারীর কারনে তার ব্যবসায় বন্ধ হয়ে যায়। তারপর থেকে তার জীবিকার একমাত্র মাধ্যম এই মোটর সাইকেল।

বিআরটিএ লার্নার কার্ড দিয়ে বাইক চালানোর অনুমতি থাকলেও লাইসেন্স হলো প্রধান। তিনি লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেও পান নি এখন পর্যন্ত। শুধু শওকত না এরকম অনকেই আছেন যারা নিয়মিত আইনের চোখকে  ফাঁকি দিয়ে রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন।

এতে করে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে এ্যাপ ভিত্তিক বাইক চালকদের। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাইক চালকরা ৬ দফা দাবি তুলে ধরেন। এছাড়া তারা কর্ম বিরতি পালন করেন।

  • শ্রমিক হিসেবে স্কীকৃতি
  • কমিশন ১০ শতাংশ নির্ধারণ
  • যানবাহন দাঁড়ানোর ব্যবস্থা করা
  • পুলিশি হয়রানি বন্ধ করা
  • গণপরিবহনের আওতামুক্ত রাখা