v

আসছে টোকিও অলিম্পিকের বিক্রিত টিকিটের মূল্য ফেরতের প্রস্তাব দিয়েছে স্থানীয় আয়োজক কমিটি। সাথে সাথে তারা এই প্রতিশ্রুতিও দিয়েছে আগামী বছর কোনো কারণে অলিম্পিক আয়োজিত না হলেও কিংবা দর্শক সংখ্যা সীমিত করা হলে তারা এক্ষেত্রে আরো ভূর্তকি দিতে প্রস্তুত আছে। অলিম্পিক থেকে ৬৩০ বিলিয়ন ইয়েন আয়ের যে লক্ষ্যমাত্রা ছিল, তার ৯০ বিলিয়ন ইয়েনই আসতো টিকিট বিক্রি থেকে।

আদিকে কিছুদিন আগে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি (আইওসি) সভাপতি থমাস বাখ সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন আগামী বছরও হয়তো করোনার কারণে পরিপূর্ণ স্টেডিয়ামে অলিম্পিকের আসর আয়োজন করা সম্ভব হবে না। এ বছর করোনা মহামারীর কারণে অলিম্পিকের আসর বাতিল করে আগামী বছর জুলাইয়ে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

জাপানের স্থানীয় দর্শকরা আগামী ১০-৩০ নভেম্বর টিকিট ফেরতের জন্য আবেদন করতে পারবে। আয়োজক কমিটি আরো জানিয়েছে ১-২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্যারালিম্পিকের টিকিট ফেরতের জন্য আবেদন করা যাবে। এছাড়া বিশ্বের অন্যান্য স্থান থেকে যারা অনলাইনে টিকিট ক্রয় করেছেন তাদেরকে সংশ্লিষ্ট এজেন্টদের কাছে এ ব্যপারে আবেদন করার আহবান জানানো হয়েছে।

একইসাথে অবশ্য আয়োজক কমিটি জানিয়ে দিয়েছে জাপানের দর্শকরা ইচ্ছা করলে এই টিকিট নিজেদের কাছে সংরক্ষন করতে পারবে এবং সীমিত পরিসরে অলিম্পিক আয়োজনের সিদ্ধান্ত হলে তখন তারা এটি ফেরত দিতে পারবে। মার্চে অলিম্পিক বাতিলের ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয় আইওসি।

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘কোভিড-১৯ এর কারণে আমরা যদি দর্শকদের স্টেডিয়ামে প্রবেশের সুযোগ দিতে না পারি তবে আমাদের অবশ্যই এ ব্যপারে বিকল্প কিছু চিন্তা করতে হবে।’

যদিও আয়োজকদের পক্ষ থেকে মুখপাত্র মাতা টাকায়া জানিয়েছেন এখনো পর্যন্ত আসর বাতিল কিংবা একেবারেই দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে আয়োজনের ব্যপারে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে একেবারে শেষ মুহূর্তে টিকিট ফেরতের বিষয়টি তাদের বিবেচনাধীন আছে। উদাহরণ স্বরূপ বলা হয়েছে কোন এ্যাথলেট যদি অলিম্পিকের সময় করোনায় আক্রান্ত হন তবে হয়তোবা পুরো ইভেন্টটি বাতিল হতে পারে।

আরো পড়ুন- ফ্রান্সের ইস্যুতে যা স্মরণ করিয়ে দিলেন ওজিল

এ পর্যন্ত অলিম্পিকের প্রায় ৪.৪৮ মিলিয়ন টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। প্যারালিম্পিকের জন্য এই সংখ্যা প্রায় এক মিলিয়ন বলে আয়োজক কমিটি নিশ্চিত করেছে। যদিও তারা বিদেশের তুলনায় জাপানে কত সংখ্যক টিকিট বিক্রি হয়েছে এ ব্যপারে বিস্তারিত কিছু জানায়নি। অতীত গেমসগুলোতে বিদেশী সমর্থকদের জন্য ১০ থেকে ২০ শতাংশ আসন সংরক্ষিত থাকত।