চলতি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে টানা তিন ম্যাচ হেরে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে এবারের বাংলাদেশ দল নিয়ে অনেক আশা ছিল। সাকিব আল হাসান ও বোর্ড প্রেসিডেন্ট জানিয়েছিলেন, এই দল নিয়ে সেমিফাইনালে খেলা সম্ভব। কিন্তু মাঠে নেমে যেন সবই গুড়েবালি। একে একে সুপার টুয়েলভের চারটি ম্যাচেই পরাজয়।

মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৬ উইকেটের ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। টস হেরে আগে ব্যাট করে ১৮.২ ওভারে মাত্র ৮৪ রানেই অলআউট হয়ে যায় রিয়াদ বাহিনী। জবাবে মাত্র ১৩.৩ ওভারে ৬ উইকেট হাতে রেখে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় প্রোটিয়ারা।

দলটির পক্ষে সর্বোচ্চ ৩১ রানে অপরাজিত থেকে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন প্রোটিয়া অধিনায়ক টেম্বা ভুবামা। এছাড়া রাসি ভ্যান ডের ডুসেন ২২ ও কুইন্টন ডি কক ১৬ রান করেন। বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ২টি উইকেট শিকার করেছেন তাসকিন আহমেদ। এছাড়া শেখ মেহেদী হাসান ও নাসুম আহমেদ নেন একটি করে উইকেট।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ধুঁকতে থাকে টাইগাররা। সর্বোচ্চ ২৭ রান করেছেন শেখ মেহেদী হাসান। এছাড়া লিটন দাস করেন ২৬ রান ও শামীম হোসেন ১১। বাকিদের মধ্যে আর কেউ দুই অংকের ঘরে পৌঁছাতে পারেননি। এদিন, বাংলাদেশি ব্যাটারদের দেখে মনেই হয়নি যে তারা জিততে নেমেছে। যেন ম্যাচ খেলতে হবে এ জন্যই মাঠে নামা।

প্রোটিয়া বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩টি করে উইকেট শিকার করেছেন কাগিসো রাবাদা ও অ্যানরিচ নর্টজে। এছাড়া তাবরেজ শামসি ২টি ও একটি উইকেট নেন ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস। ম্যাচ সেরা প্লেয়ার নির্বাচিত হয়েছেন রাবাদা।