টিকটক করা নিয়ে বাগেরহাট শহরতলির দশানী এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী শ্রবণী আক্তার সুমা (২০) কে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে থানায় আত্মসমর্পন করেছে তার স্বামী পোশাককারখানার কর্মী আব্দুল্লাহ নাহিন শান্ত (২৫)।

গতকাল শনিবার (৮ মে) রাত ৯টার দিকে দশানী এলাকার বালিকা বিদ্যালয়সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সুমা বাগেরহাট সদর উপজেলার কাড়াপাড়া ইউনিয়নের সিংড়াই গ্রামের বাসিন্দা করিম বক্স এর মেয়ে। শান্ত দশানী এলাকার বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত সেনাসদস্য গোলাম মোহাম্মদ এর ছেলে। পুলিশ নিহতের মরাদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, শান্ত ঢাকার একটি পোশাককারখানায় চাকরি করতো। সম্প্রতি করোনা মহামারিতে তার চাকরি চলে গেলে সে বাড়িতে ফিরে আসে। শান্ত বাড়িতে আসার কিছুদিন পর শান্ত ও তার স্ত্রীর সুমার মধ্যে টিকটক করা নিয়ে ঝগড়া হয়। পরে সুমা রাগ করে বাবার বাড়িতে চলে যায়। বাড়িতে কেউ না থাকার সুবাধে এদিন বিকালে শান্ত ফোন করে তার স্ত্রীকে বাড়িতে ডেকে নেয়।

আরও পড়ুনঃ- লাকসামের দৌলতগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

মাগরিবের নামাজের পর তাদের মধ্যে আবারো টিকটক নিয়ে ঝগড়া বিবাদ শুরু হয়। এ সময় শান্ত তার স্ত্রী সুমাকে মুখে কিলঘুষি দিয়ে ওড়না দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে থানায় গিয়ে আত্মসমর্পন করে।

বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম আজিজুল ইসলাম বলেন, স্ত্রীকে হত্যা করে শান্ত নামের এক যুবক থানায় আত্মসমর্পন করেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। মরাদেহ উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।