জেরুজালেমের বাসিন্দাদের পাসপোর্টে হবে ইসরাইলের নাম

জেরুজালেমের

ফিলিস্তিনের জেরুজালেমের নগরীর বায়তুল মুকাদ্দাসে জন্মগ্রহণকারী মার্কিন নাগরিকদের পাসপোর্টে হবে তাদের জন্মস্থান ‘ইসরাইল’ বলে উল্লেখ করার প্রকল্প হাতে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এমন ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ফিলিস্তিনের কর্তৃপক্ষ। তারা বিষয়টিকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলে প্রত্যাখ্যান করেছে। খবর আল জাজিরার।

গত বৃহস্পতিবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এক ঘোষণা করেন, বায়তুল মুকাদ্দাসে জন্মগ্রহণকারী মার্কিন নাগরিকরা তাদের পাসপোর্টে জন্মস্থান হিসেবে ‘ইসরাইল’ নামটি উল্লেখ করতে পারবে।

এতদিন ওই নগরীতে জন্মগ্রহণকারী মার্কিন নাগরিকদের জন্মস্থান হিসেবে ফিলিস্তিন বা ইসরাইল কোনো নামই লেখা হতো না।

ফিলিস্তিনি কতৃপক্ষের মুখপাত্র নাবিল আবু রাদিনা শুক্রবার বলেছেন, বায়তুল মোকাদ্দাসে (জেরুজালেম) জন্মগ্রহণকারী মার্কিন নাগরিকদের পাসপোর্টে তাদের জন্মস্থান হিসেবে ইসরাইলের নাম উল্লেখ করা আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

এদিকে ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের মুখপাত্র হাজেম কাসেম এ ঘটনাকে ‘ইতিহাস বিকৃতি’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

আরও পড়ুন :- কুয়েতে ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের ডাক

তিনি বলেছেন, মার্কিন সরকার কুদস দখলদার ইসরাইল সরকারকে পৃষ্ঠেপাষকতা দিয়ে শুধু ফিলিস্তিনি জাতির অধিকারই লঙ্ঘন করেনি সেইসঙ্গে প্রমাণ করেছে, আরব দেশগুলোর রাজা-বাদশাহদেরও বিন্দুমাত্র তোয়াক্কা করে না তারা।

2 মন্তব্য

Leave a Reply