জাতীয় স্মৃতিসৌধে

সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। আজ (১৫ ডিসেম্বর) সেখানে পৌঁছে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন তিনি। এরপর দর্শনার্থী খাতায় নিজের অনুভূতি লিখেছেন। সবশেষে একটি গাছের চারা রোপণ করেন।

স্মৃতিসৌধে রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে ছিলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ও কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তেজগাঁওয়ের হেলিপ্যাডে যান ভারতের রাষ্ট্রপতি। হেলিকপ্টারে চড়ে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানালেন তিনি। এরপর আবারও হেলিপ্যাডে করে তেজগাঁও ফিরেছেন তিনি।

ভারতীয় কূটনীতিক অরিন্দম বাগচী টুইটারে জানান- দর্শনার্থী খাতায় ভারতের রাষ্ট্রপতি লিখেছেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে যারা জীবন উৎসর্গ করেছেন তাদের চেতনা আমাদের চিন্তা ও কর্মে অব্যাহত থাকুক।’

বাংলাদেশের বিজয় দিবসের সুবর্ণজয়ন্তী, মুজিববর্ষের সমাপনী দিন উদযাপন এবং বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে আজ ঢাকায় এসেছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। তাকে বহনকারী এয়ার ইন্ডিয়া ওয়ান উড়োজাহাজটি সকাল সাড়ে ৯টায় দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা দিয়ে সকাল ১১টা ১০ মিনিটে ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। তাঁকে অভ্যর্থনা জানান বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ ও তার স্ত্রী রাশিদা হামিদ।

বিমানবন্দরে গার্ড অব অনার পাওয়ার পর লালগালিচায় পা মাড়িয়েছেন রামনাথ কোবিন্দ। তখন আবহসংগীত হিসেবে বেজেছে দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের ‘এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি’ গানের সুর। ভারতের রাষ্ট্রপতির সঙ্গী হয়েছেন তার সহধর্মিণী সবিতা কোবিন্দ ও কন্যা, ভারতের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী, দুইজন সংসদ সদস্য, পররাষ্ট্র সচিবসহ বিভিন্ন দফতরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা।