মির্জা ফখরুল

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে অশালীন বক্তব্য দেয়ায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের পদত্যাগ দাবি করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার দলের সহদপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত এক বিবৃতি পাঠিয়ে সংবাদমাধ্যমকে এ কথা জানিয়েছেন তিনি।

বেগম খালেদা জিয়ার নাতনি জাইমা রহমানকে নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দিয়ে সমালোচনায় পড়েন তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান। বিষয়টি নিয়ে এরই মধ্যে প্রতিবাদ জানিয়েছেন দেশের জেন্ডার বিশেষজ্ঞ ও অধিকারকর্মীরা। তবে নিজের বক্তব্যে অনড় থাকার কথা জানিয়েছেন মুরাদ হাসান।

তাছাড়া এ নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকেও প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়। গণমাধ্যমের প্রশ্নের মুখে পড়ে ওবায়দুল কাদের বক্তব্যটি মুরাদ হাসানের ব্যক্তিগত বলে সাফাই বলে এড়িয়ে যান। তবে তিনি বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করবেন বলে জানান।

মির্জা ফখরুল বলেন, জাতীয় পতাকাধারী একজন ব্যক্তির এমন বক্তব্য তার মনোবৈকল্যের প্রকাশ বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এমন বক্তব্য জাতিকে স্তম্ভিত করেছে।’

অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে, এমনকি যখন তিনি চিকিৎসা নিয়ে সরকারের প্রতিহিংসামূলক আচরণের শিকার, তখন তার পরিবারের নারী সদস্যকে নিয়ে এমন বক্তব্য দেশের নারী নেত্রীসহ সচেতন মহলের ঘৃণা কুড়িয়েছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করেছেন ফখরুল ইসলাম।

বিএনপির এই নেতা অবিলম্বে সরকারের তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে নারী ও বর্ণবিদ্বেষী বিকৃত মন্তব্য প্রত্যাহার করে জনসমক্ষে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান। না হয় ভবিষ্যতে এর দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে বলেও বিবৃতিতে হুঁশিয়ারি জানিয়েছে বিএনপি।