শিক্ষক নিবন্ধনের ফল

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ মামলার জটিলতা নিরসন হয়েছে। নিয়োগ কার্যক্রম শুরু করতে আইন মন্ত্রণালয় ইতিবাচক সম্মতিও দিয়েছে। এতে স্কুল-কলেজে চতুর্থ ধাপে প্রায় ৫৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশে আর বাধা নাই। বুধবার নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য ।

জানা গেছে, স্কুল-কলেজে চাহিদা অনুযায়ী শূন্যপদ পূরণ করতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের প্রস্তুতি শুরু করেছে এনটিআরসিএ। এজন্য আদালতের কিছু আদেশ আছে, সেগুলো যাচাই-বাছাই করে শূন্যপদের বিপরীতে এ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে শিগগিরই। এছাড়া আবেদন প্রক্রিয়া কোন পদ্ধতিতে হবে, তার কর্মপরিকল্পনাও তৈরি হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বর্তমানে সারাদেশে ৫৭ হাজারের কিছু বেশি পদশূন্য রয়েছে। এর মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভুলের কারণে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েও নিয়োগ না পাওয়া এক হাজার ২৭০টি পদে আগের নিয়োগের ভুক্তভোগীদের নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। বাকি প্রায় ৫৬ হাজারের মতো শূন্যপদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয়া হতে পারে।

জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, ‘আইন মন্ত্রণালয় থেকে মতামত পাওয়া গেছে। কিন্তু এনসিআরসিএ সেটি মন্ত্রণালয়ে এখনও পাঠায়নি। পাঠানোর সঙ্গে সঙ্গে দ্রুত সময়ে এর ওপর মতামত দেয়া হবে।

১৩তম নিবন্ধনধারীরা রিট করেছিলেন বেসরকারি শিক্ষক পদে নিয়োগের সুযোগ পেতে। রিট করা দুই হাজার প্রার্থীকে আবেদনের সুযোগ দিতে আদালতের নির্দেশনা আছে। এছাড়া যাদের বয়স ৩৫ বছর হয়ে গেছে তাদের আবেদনের সুযোগের বিষয়েও নির্দেশনা দেন আদালত।