এশিয়া কাপ স্থগিত
ফাইল ছবি

করোনার প্রভাবে একের পর এক টুর্নামেন্ট ও সিরিজ স্থগিত হচ্ছে। এবার স্থগিত হল ২০২০ সালের এশিয়া কাপও। বৃহস্পতিবার এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এই পরিস্থিতিতে ‘ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা, দেশভেদে কোয়ারেন্টাইনের বাধ্যবাধকতা, স্বাস্থ্য-ঝুঁকির কথা ভেবে’ এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে এসিসি।‘

গতকাল নিজের ৪৮তম জন্মদিনের দিনে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী ইনস্টাগ্রামের এক ভিডিও অনুষ্ঠানে দাবি করছিলেন, এশিয়া কাপ বাতিল হয়ে গেছে । কিন্তু এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) কাছ থেকে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না আসায় সৌরভের মন্তব্য নিয়ে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। এশিয়া কাপ আনুষ্ঠানিকভাবে বাতিলের ঘোষণা দিয়ে সে বিভ্রান্তি আজ দূর করে দিয়েছে এসিসিই।

আরো পড়ুন- পদত্যাগ করলেন আইসিসি চেয়ারম্যান

এইদিকে শুধু পাকিস্তান নয়, বাংলাদেশও সৌরভের বক্তব্যের ব্যাপারে দ্বিমত পোষণ করেছিল। দুটি দেশই বলার চেষ্টা করেছে, এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার কেবল এসিসিরই আছে। অবশেষে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এসিসি সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এশিয়া কাপ স্থগিতের ঘোষণা দিলো।

করোনার এই সময়টাতে এশিয়া কাপ নিয়ে কয়েক দফা মিটিং হয়েছিল। শুরুতে যথাসময়ে টুর্নামেন্ট আয়োজন করার ইচ্ছে থাকলেও বর্তমান পরিস্থিতিতে সেখান থেকে সরে এসেছে এসিসি। বিবৃতিতে সংস্থাটি জানিয়েছে, ‘ক্রিকেটার, সাপোর্ট স্টাফ, বাণিজ্যিক সহযোগী, দর্শকদের নিরাপত্তাজনিত ঝুঁকির বিষয়টি তাৎপর্যপূর্ণ মনে হয়েছে। এ কারণে আমরা কোন ঝুঁকি না নিয়ে ২০২০ সালের এশিয়া কাপ স্থগিত করেছি।

এসিসি ২০২১ সালের জুনে এ টুর্নামেন্ট আয়োজনের আশা করছে। এমনিতে এ বছরের টুর্নামেন্টের আয়োজক পাকিস্তান হলেও পিসিবি ও এসএলসি আয়োজনের স্বত্ব অদল-বদল করেছিল। ফলে এবারের টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে শ্রীলঙ্কা। এসিসি বলছে, ২০২১ সালে শ্রীলঙ্কাই এ টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে। তারপরের এশিয়া কাপ অর্থাৎ ২০২২ সালের এশিয়া কাপ হবে পাকিস্তানে।

আরো পড়ুন- ম্যাচ শেষে ক্ষমা চাইত ভারতীয় বোলাররা: আফ্রিদি