এরদোগান
তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম নিয়ে বিষোদগার করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।  তিনি বলেন, সামাজিকমাধ্যমগুলো গণতন্ত্রের জন্য হুমকি।  স্থানীয় সময় শনিবার তিনি এ মন্তব্য করেন।

খবর আলজাজিরার। এরদোগান বলেছেন, সত্যের ফ্রেমে থেকে মিথ্যা তথ্য ও প্রপাগান্ডার বিরুদ্ধে লড়াই করা জরুরি হয়ে পড়েছে। তুরস্কের সরকার অনলাইনে ভুয়া তথ্য ও সংবাদ ছড়ানোর বিষয়টি অপরাধ হিসেবে গণ্য করছে।  তবে সমালোচকরা বলছেন, এটি বাকস্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ ছাড়া কিছুই নয়।

এরদোগান বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম যখন প্রথম এসেছিল, তখন এটিকে বাকস্বাধীনতার প্রতীক হিসেবে গণ্য করা হয়েছিল।  কিন্তু আজকের গণতন্ত্রের জন্য এটি হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

‘আমরা আমাদের জনগণকে, বিশেষ করে সমাজে যারা ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে বাস করেন, তাদের মাঝে ভুল ও মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা থেকে রক্ষার চেষ্টা করছি, তাদের সঠিক ও নিরপেক্ষ তথ্য পেতে সহায়তা করছি। তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, ভুয়া খবরের কারণে লাখ লাখ মানুষের জীবনে অন্ধকার নেমে এসেছে।

গত বছর তুরস্কে একটি আইন পাশ হয়।  আইন অনুযায়ী, ১০ লাখ সামাজিকমাধ্যম ব্যবহারকারীর প্ল্যাটফরমকে আইনি প্রক্রিয়া মেনে চলতে এবং ডাটা সংরক্ষণ করতে হবে।  তুর্কিরা ফেসবুক, ইউটিউব ও টুইটার ব্যবহারে অভ্যস্ত।

মিথ্যা তথ্য ছড়ানো ও ভুয়া সংবাদ প্রচারের শাস্তি ৫ বছর সাজার বিধান রাখা হয়েছে। তুরস্কের বেশিরভাগ মিডিয়া কোম্পানি সরকারের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।