করোনা সংকটে পুলিশের এক এডিসির মানবিক উদ্যোগ

এডিসি এনামুল হক মিঠু

মতিঝিল জোনের এডিসি এনামুল হক মিঠু। নীরবে নিভৃতে সংকটে থাকা মানুষের পাশে এসে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন। সাধ্যমতো যতুটুকু সম্ভব সহায়তা দিচ্ছেন ব্যক্তি উদ্যোগে। প্রচার বিমূখ এই পুলিশ কর্মকর্তার মানবিক উদ্যোগ এরই মধ্যে পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে।

দীর্ঘদিন করোনা সংকটের কারনে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন বিভিন্ন পেশার মানুষ। এর ফলে খাদ্য সংকটও দেখা দিয়েছে অনেক পরিবারে। কর্মহীন এসব মানুষের মধ্যে ব্যক্তি উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশর (ডিএমপি) মতিঝিল জোনের এডিসি এনামুল হক মিঠু।

করোনা সংকটে নিম্ন মধ্যবিত্ত ও অসচ্ছল মানুষের ফোন পেয়ে নিজেই বাসায় বাসায় গিয়ে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা। নিজস্ব অর্থায়নে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন ৩০তম বিসিএস ক্যাডারের এই পুলিশ কর্মকর্তা। সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশুনা শেষে মানবতার সেবায় পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন। মানবিক পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে সাধারণ মানুষের মধ্যে সুখ্যাতি রয়েছে এই পুলিশ কর্মকর্তার।

কর্মহীনদের বাসায় গিয়ে খাদ্য পৌঁছে দিচ্ছেন মতিঝিলের এডিসি
এডিসি এলামুল হক মিঠুর মানবিক সহায়তা

দেশ সমাচারের সাথে একান্ত আলাপে এডিসি এনামুল হক মিঠু বলেন, কোন কিছু প্রাপ্তির আশায় নয়, শুধু মানুষের অসহায়ত্বের দিক বিবেচনা করেই মানবিক দ্বায়িত্ববোধ থেকে এ উদ্যোগ নিয়েছি। করোনাভাইরাসের শুরুর দিকে মতিঝিল,কমলাপুর.স্টেডিয়ামসহ বিভিন্ন স্থানে দেখতে পেয়েছি ছিন্নমূল এবং হতদরিদ্র মানুষ একাধিকবার ত্রাণ পেয়েছ। কিন্তু নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষ মানবেতরভাবে জীবনযাপন করলেও লোকলজ্জার ভয়ে সাহায্য নিতে আসছেন না।

দেশ সমাচারকে এই পুলিশ কর্মকর্তা আরো বলেন, আমি নিজেও মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। তাই তাদের কষ্ট অনুভব করতে পারি ভীষণভাবে। প্রথমদিকে এসব পরিবারের সদস্যদের ত্রাণ সহায়তা নিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করি। কিন্তু তারা ইতস্তবোধ করার কারনে পরে বাসায় বাসায় গিয়ে তাদের খাবার পৌছে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেই।


এডিসি এনামুল হক মিঠু বলেন, রাজধানীর মৌচাক,আনারকলি মার্কেটসহ বিভিন্ন দোকানের কর্মচারীরা করোনা প্রার্দুভাবে বেকার হয়ে পড়েছেন। এছাড়া যানবাহন চালকরাও বেকার হয়ে পড়েছেন। তাই সম্পূর্ণ ব্যক্তিগতভাবে অসহায় মানুষগুলোর পাশে থাকার চেষ্টা করছি। তাদের বাসায় বাসায় গিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিচ্ছি।

কয়েকদিন আগে রাজারবাগ পুলিশ লাইনস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন পুলিশের ৩৪০ সদস্যকে মৌসুমি ফল পৌছে মানবিক এই পুলিশ কর্মকর্তা। ব্যক্তিগত উদ্যোগের পাশপাশি গেলো শুক্রবার ডিএমপির দেয়া ৫০০ প্যাকেট ত্রাণ সামগ্রী কর্মহীন মানুষদের বাসায় গিয়ে পৌছে দেন তিনি।
নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী অসহায় মানুষকে সাহায্য করার চেষ্টা অব্যাহত থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মানবিক এই পুলিশ কর্মকর্তা। 

আরো পড়ুন- প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ২০ কোটি টাকা অনুদান পুলিশের, বাড়িওয়ালাদের সঙ্গে পুলিশের বৈঠক, ২৪ ঘণ্টায় করোনায় পুলিশের ২৪১ সদস্য আক্রান্ত

1 মন্তব্য

Leave a Reply