আমার ছেলে দেশকে নিয়ে ভাবত : সিনহার মা

টেকনাফ পুলিশে নিহত অবসরপ্রাপ্ত সেনা
প্রেস ব্রিফিংয়ে সিনহার মা নাসিমা আক্তার

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা মেজর সিনহা মো. রাশেদের মা নাসিমা আক্তার বলেছেন, রাশেদ রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন না, দেশকে নিয়ে ভাবত। তিনি বলেন আর কোনো মায়ের বুক যেন খালি না হয়। এটিই যেন হয় শেষ বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনা।

আজ সোমবার রাজধানীর উত্তরায় নিজ বাসায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন। এদিন অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তারা সিনহার মাকে সান্ত্বনা দিতে তার বাসায় যান।

আরো পড়ুন- পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহত

সিনহার মা জানান, প্রথম দিকে উত্তরা পশ্চিম থানার এক পুলিশ তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রশ্ন করেন, সেটি মেজর সিনহার বাসা কি না। সিনহার মা ভেবেছিলেন, কাজে গিয়ে হয়তো কোনো জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে, এজন্য পুলিশ সিনহা রাশেদের বিস্তারিত পরিচয় জানতে চাইছে।

এর পরই তাঁকে প্রশ্ন করা হয় সিনহা রাশেদ রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন কি না। এর জবাবে সিনহার মা বলেছিলেন, ‘এ ব্যাপারে আমি ১০০ পার্সেন্ট বলতে পারি, সিনহা রাজনীতির সঙ্গে মোটেও জড়িত ছিল না। আমি রাজনীতির সঙ্গে তাঁর কোনো সম্পৃক্ততা দেখিনি।’

এ ছাড়া সিনহার মাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, কেন সিনহা সেনাবাহিনীর চাকরি ছেড়ে দিয়েছিলেন। এর জবাবে সিনহার মা বলেছিলেন, বিশ্ব ভ্রমণসহ আরো কিছু কাজ করার ইচ্ছে থাকায় চাকরি ছেড়েছিলেন তিনি।

এ সময় নাসিমা আক্তার বলেন, আমি চাই– এটিই যেন হয় দেশে বিচারবহির্ভূত হত্যার শেষ ঘটনা। আর কোনো মায়ের বুক যেন খালি না হয়। এ বিষয়ে সবাই যেন সচেতন হন।

এ সময় তিনি বলেন, সিনহা পরবর্তী প্রজন্মের কথা ভাবত। দেশের জন্য কাজ করাই ছিল তার লক্ষ্য। এ জন্য তার কাজের প্রতি আমার সমর্থন ছিল।

ব্রিফিংয়ে সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বলেন, প্রধানমন্ত্রী সিনহা হত্যার বিচারের আশ্বাস দিয়েছেন। আমরা আশা করছি, দ্রুততার সঙ্গে বিচারকাজ সম্পন্ন হবে।

তিনি আরও বলেন, সিনহাকে বলেছিলাম– দেশের জন্য কাজ করে মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিতে। মৃত্যুর পর তার প্রতি মানুষের সে ভালোবাসা দেখেছি– সে ছিল ‘প্রিন্স অব পিপলস হার্ট’।

Leave a Reply