দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় আদালত গত আড়াই বছরে প্রায় সাড়ে চারশ কোটি টাকার সম্পদ বাজেয়াপ্ত করেছে বলে জানিয়েছেন দুদক সচিব ড. মু. আনোয়ার হোসেন হওলাদার।

বুধবার (৩ নভেম্বর) বিকেলে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক আলোচনায় তিনি একথা জানান।

দুদক সচিব বলেন, ‘গত আড়াই বছরে প্রায় সাড়ে চারশত কোটি টাকার সম্পদ বাজেয়াপ্ত করেছে আদালত। এসব সম্পদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা ছিল। দুদকের অনুরোধে আদালত এসব সম্পদ বাজেয়াপ্ত করেছে। এছাড়া ২০১৯ সালে ৪৩৬ কোটি ৮৮ লাখ ৯৫ হাজার ৩৩৪ টাকা, ২০২০ সালে ৩ কোটি ৩ লাখ ৬৯ হাজার টাকা আর চলতি বছরের আগস্ট পর্যন্ত ২ কোটি ৩৬ লাখ ৯৫ হাজার ৩২ টাকার সম্পত্তি রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত হয়েছে।’

আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘যাদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত হয়েছে তাদের মধ্যে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আফজাল হোসেন ও তার স্ত্রী, চট্টগ্রামের পটিয়া থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেফায়েত উল্লাহ চৌধুরী, কক্সবাজারের টেকনাফ থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাশ অন্যতম।’

সচিব আরও বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি দুদকের মামলা বা দুর্নীতির মামলার সম্পদ যেন কেউ ভোগ করতে না পারে সেই ব্যবস্থা নিতে। কমিশন সেসব বিষয়ে সবসময় নজর রাখছে। আর সর্বোপরি একটা কথায় পরিষ্কার দুর্নীতিবাজদের কোনো ছাড় নয়। আমরা দুর্নীতিবাজদের কোন ছাড় দেব না। কমিশন এসব বিষয়ে সবসময় সচেষ্ট।’